ঢাকা, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ৬ চৈত্র ১৪২৫

2019-03-20

, ১৩ রজব ১৪৪০

মুরগির আক্রমণে শিয়ালের মৃত্যু

প্রকাশিত: ০৮:৪২ , ১৪ মার্চ ২০১৯ আপডেট: ০৮:৪২ , ১৪ মার্চ ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ফ্রান্সের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের একটি স্কুলের খামারে কিছু মুরগির আক্রমণে একটি ছোট শিয়াল মারা গেছে। শিয়ালটি মুরগির খাঁচায় ঢুকে পড়লে দরজা তৎক্ষণাৎ বন্ধ হয়ে যায়। পরে, মুরগির আক্রমণে প্রাণ যায় শিয়ালটির।

ফ্রান্সের ব্রিট্টানিতে অস্বাভাবিক এই ঘটনাটি ঘটেছে বলে বিবিসি’র এক প্রতিবেদনে জানানো হয়। প্রতিবেদন অনুযায়ী, সেই মুরগির খাঁচায় অন্তত তিন হাজার মুরগী ছিল।

কৃষি বিষয়ক ঐ স্কুলের প্রধান প্যাসকেল ড্যানিয়েল বলেন, ‘এগুলো এদের সহজাত প্রবৃত্তি। তারা ঠোঁট দিয়ে শিয়ালটিকে আক্রমণ করে।’

ফ্রান্সভিত্তিক সংবাদ সংস্থা এএফপিকে প্যাসকেল ড্যানিয়েল বলেন, ‘শিয়ালটির ঘাড়ে মুরগির ঠোঁটের আঘাতের চিহ্ন ছিল। তা থেকে বোঝা যায় শিয়ালটি মুরগির আক্রমণের মুখে মারা গেছে। পরদিন খামারের এক কোণে শিয়ালটির লাশ পাওয়া যায়।’

পাঁচ একর জমির উপর তৈরি করা খামারটিতে প্রায় ছয় হাজার মুরগিকে প্রাকৃতিক পরিবেশে পালন করা হয়। দিনের বেলায় খাঁচার দরজা খুলে রাখা হয় যাতে মুরগিগুলো বাইরে ঘুরে-ফিরে বেড়াতে পারে।

ধারণা করা হচ্ছে, সেসময়ই শিয়াল শাবকটি মুরগির খাঁচায় ঢুকে পরে। তারপর যখন স্বয়ংক্রিয় খাঁচাটি বন্ধ হয়ে যায়, তখন পাঁচ-ছয় মাসের এই শিয়াল শাবকটি ভেতরে আটকা পড়ে।

ড্যানিয়েল বলেন, ‘সম্ভবত এতোগুলো মুরগির আক্রমণে শিয়ালটি ভয় পেয়ে গিয়েছিল। মুরগিগুলো দলবদ্ধ অবস্থায় খুবই নাছোড়বান্দা হয়ে উঠতে পারে।’ আর এ কারণেই এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানান তিনি।

 

এই বিভাগের আরো খবর

মতানৈক্যের কারণে ব্রেক্সিট ইস্যুতে তৃতীয়বারের ভোট স্থগিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ব্রিটিশ এমপিদের মতানৈক্যের কারণে ব্রেক্সিট ইস্যুতে তৃতীয়বারের ভোট স্থগিত রাখলেন দেশটির পার্লামেন্টের স্পিকার জন...

ঘূর্ণিঝড় ইদাইর আঘাতে প্রাণহানির সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মোজাম্বিকে ঘূর্ণিঝড় ইদাইর আঘাতে প্রাণহানির সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন দেশটির...

মসজিদে সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহতদের প্রতি নিউজিল্যাণ্ডের পার্লামেন্টের শ্রদ্ধা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্টের...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is