দ্বিতীয় ধাপে উপজেলায় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বেশিরভাগ প্রার্থীর জয়

প্রকাশিত: ০৯:২৬, ১৯ মার্চ ২০১৯

আপডেট: ০৪:৫৭, ১৯ মার্চ ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদন: দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বেশিরভাগ প্রার্থী জয়লাভ করেছে। তবে, আধিপত্যে ভাগ বসিয়েছেন স্বতন্ত্ররা। এক তৃতীয়াংশ উপজেলায় নির্বাচিত হয়েছেন তারা। নৌকা প্রতীকের প্রতিদ্বন্দ্বি হয়ে অনেকগুলো উপজেলায় জিতেছেন স্বতন্ত্র প্রতীকের প্রার্থীরা।

দ্বিতীয় ধাপে ১২৯ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে কমিশন। পরে গোপালগঞ্জের ৫টি ও দিনাজপুর সদর উপজেলার নির্বাচন পিছিয়ে দেয় কমিশন। এছাড়া, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করেছে হাইকোর্ট। এদিকে, নওগাঁ সদর, পাবনা সদর, ফরিদপুর সদর, হাতিয়া, মিরসরাই ও রাউজানে নির্বাচন হচ্ছে না। সবশেষ ১১৬ উপজেলায় ভোট হয় সোমবার।

এর মধ্যে দলীয় নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগ জিতেছে ৫২টি উপজেলায়। আর আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জিতেছে ৩৮টি উপজেলায়।  স্বতন্ত্র পরিচয়ের জয়ী হওয়া ৩৮জন চেয়ারম্যানের মধ্যে দুইজন জাতীয় পার্টির, একজন পার্বত্য চট্টগ্রামের জেএসএস সদস্য। বাকি ৩৫ উপজেলায় জয়ী হওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে দুজন দল পরিচয়বিহীন, একজন বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত। অন্য ৩২ জন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করে জয়ী হয়েছেন।

এদিকে, রাঙামাটিতে নির্বাচনি কর্মকর্তা ও সদস্যদের ওপরে হামলার কারণে ৭টি উপজেলার ফল রাতে প্রকাশ করা হয়নি। আর খাগড়াছড়ির একটি কেন্দ্রে ফল প্রকাশ স্থগিত রয়েছে। আর নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ২৪টি উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগ। বেশ কয়েকটি উপজেলায় সবগুলো পদেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় জয়লাভ করেন।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

তিন সংসদীয় আসনে উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা-১০, বাগেরহাট-৪...

বিস্তারিত
২১ মার্চ তিন আসনের উপ-নির্বাচন হবে: ইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক: কোভিড-১৯ (করোনা...

বিস্তারিত
ছুটির দিনে ঢাকা-১০ আসনে সরগরম প্রচারণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ (শুক্রবার) ছুটির...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *