ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬

2019-04-17

, ১১ শাবান ১৪৪০

ক্যান্সার চিকিৎসায় নতুন সাফল্য

প্রকাশিত: ০৯:৪৭ , ১৬ এপ্রিল ২০১৯ আপডেট: ০৯:৪৭ , ১৬ এপ্রিল ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: ক্যান্সার চিকিৎসা নিয়ে নতুন সাফল্যের খবর দিলেন যুক্তরাজ্যের গবেষকরা। নতুন এই পদ্ধতিতে পুরো শরীরের জন্য ওষুধ না দিয়ে শুধু আক্রান্ত কোষগুলোর চিকিৎসা সম্ভব। একই সঙ্গে তাঁরা চিকিৎসার জন্য নতুন কিছু ধারণাও নিয়ে এসেছেন। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত গবেষণাপত্র আন্তর্জাতিক সাময়িকী ‘নেচার’-এ প্রকাশিত হয়েছে।

ওয়েলকাম স্যাংগার ইনস্টিটিউটের একটি দল ৩০ ধরনের ক্যান্সার কোষ ধ্বংস করতে সক্ষম হয়েছে। এর মাধ্যমে প্রায় ৬০০ নতুন ধরনের ঝুঁকি নিরসন করা সম্ভব হয়েছে বলে তারা জানিয়েছে। বর্তমানে ক্যান্সার চিকিৎসায় কেমোথেরাপি দেওয়া হয়। আর এর প্রতিক্রিয়ায় পুরো শরীরেই কমবেশি ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে।

গবেষকদের একজন ডা. ফিওনা বেহান। তাঁর মা ক্যান্সারে দুইবার আক্রান্ত হয়ে মারা যান। প্রথম দফায় ডা. বেহানের মাকে যে কেমোথেরাপি দেওয়া হয়, তাতে তাঁর হৃদ্যন্ত্রের ক্ষতি হয়। ফলে দ্বিতীয়বার যখন তিনি ক্যান্সার আক্রান্ত হলেন, তখন চিকিৎসা নেওয়ার মতো অবস্থা তাঁর ছিল না।

ডা. বেহান বলেন, ‘বর্তমানে যে চিকিৎসা পদ্ধতি প্রচলিত আছে তা ক্যান্সার রোগীর পুরো শরীরের চিকিৎসা। সুনির্দিষ্টভাবে ক্যান্সার কোষগুলোকে চিহ্নিত করা হয় না। এ গবেষণায় আমরা ক্যান্সার কোষগুলোর দুর্বলতম স্পটগুলোকে শনাক্ত করেছি এবং এটি আমাদের ওষুধ তৈরিতে সহায়তা করেছে। এগুলো শুধু ক্যান্সার কোষগুলোরই চিকিৎসা দেবে। অক্ষত রাখবে ভালো কোষগুলোকে।’

ক্যান্সার মানুষের শরীরের ভেতরের কোষগুলোকে পরিবর্তন করে দেয়। ফলে ডিএনএ নির্দেশনাও পরিবর্তন হয়ে যায়। পরে ধীরে ধীরে আক্রান্ত কোষগুলো ছড়াতে থাকে। একপর্যায়ে মানুষকে মৃত্যুর দিকে নিয়ে যায়।

এখন গবেষকরা বলছেন, তাঁরা ক্যান্সার জিনগুলো অকার্যকরের পথে অগ্রগতি অর্জন করেছেন। প্রায় ৩০ ধরনের ক্যান্সার থেকে ল্যাবরেটরিতে বেড়ে ওঠা ৩০০টির বেশি টিউমারের জিন বাধাগ্রস্ত করেছেন তাঁরা। এ জন্য তাঁরা বিশেষ ধরনের জেনেটিক টেকনোলজি ব্যবহার করেছেন, যেটি গত বছর চীনে ব্যবহৃত হয়েছিল।

ডা. বেহান বলেন, ‘আমি বুঝতে পারছি ক্যান্সার সেলগুলোতে কী হচ্ছে, যাতে সুনির্দিষ্টভাবেই ওই কোষগুলোর দিকে বন্দুক তাক করা যায়।’

গবেষকদের প্রধান লক্ষ্য, সব ধরনের ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য ‘ক্যান্সার ডিপেনডেন্সি ম্যাপ’ প্রণয়ন করা। এর ফলে চিকিৎসকরা টিউমারগুলো টেস্ট করে আক্রান্ত কোষগুলোকে ধ্বংসের জন্য ওষুধ দিতে পারবেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ডালিম খাবেন না যে চার লোক!

অনলাইন ডেস্ক: বেদানা বা ডালিমকে স্বর্গীয় ফল বলা হয়। কারণ এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধের জাদুকরী গুনাগুন। ডালিম বা বেদানা ফল...

টনসিলের ব্যথা!

ডেস্ক প্রতিবেদন: অনেক সময় গলার ভিতরে এতটাই ব্যথা করে যে ঢোক গিলতে গেলেও খুব কষ্ট হয়! গলায় এই ধরনের ব্যথা সাধারণত টনসিলে সংক্রমণের জন্য হয়ে...

উচ্চ রক্তচাপ কমায় ডাবের পানি!

অনলাইন ডেস্ক: পানীয় হিসেবে ডাবের পানি অত্যন্ত জনপ্রিয়। বিশেষ করে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপসমূহ এবং ক্যারিবীয়...

পান্তা ভাতের পুষ্টিগুণ!

অনলাইন ডেস্ক: পান্তা ভাতের সাথে সাধারণত কাঁচা মরিচ বা পেঁয়াজ খাওয়ার প্রচলন ছিল। বাংলা নববর্ষ উদযাপনের সাথে পান্তা ভাত খাওয়ার সংশ্লিষ্টতার...

জেনে নিন হিট স্ট্রোকের লক্ষণ

ডেস্ক প্রতিবেদন: যত দিন যাচ্ছে, তত চড়ছে তাপমাত্রার পারদ। বৈশাখ মাস পড়তে না পড়তেই গরমে রীতিমতো হাঁসফাঁস অবস্থা! আর গরম যত বাড়ছে, ততই বাড়ছে হিট...

যেসব খাবারে পানি শূন্যতা পূরণ হয়

ডেস্ক প্রতিবেদন: উচ্চ তাপমাত্রা আর যানজট সত্ত্বেও গন্তব্যে ছুটতে হয় প্রতিনিয়ত। ফলে শরীর থেকে প্রচুর পরিমাণে পানি বের হয়। একটু সাবধান না...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is