ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬

2019-04-17

, ১১ শাবান ১৪৪০

বিজিএমইএ ভবন ভাঙার কার্যক্রম শুরু

প্রকাশিত: ১০:৩৮ , ১৬ এপ্রিল ২০১৯ আপডেট: ০১:২৭ , ১৬ এপ্রিল ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : দীর্ঘ ৮ বছরের আইনি জটিলতা শেষে রাজধানীর হাতিরঝিলে অবস্থিত তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র ভবনটি অবশেষে ভেঙে ফেলার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার ওয়ালিউর রহমানের নেতৃত্বে সকাল ৯টা থেকে এই কার্যক্রম শুরু হয়। 

ভবনে দু’টি ব্যাংকসহ ১০ থেকে ১২ টি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের অফিস রয়েছে। রাজউকের নির্দেশে নিজেদের মালামাল সরিয়ে নিচ্ছে তারা। এরপর বিজিএমইএ ভবনের গ্যাস বিদ্যুৎ, পানি, টেলিফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে। 

রাজউকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অপসারণ কার্যক্রম শেষে আগামী দুই একদিনের মধ্যে নিয়ন্ত্রিত ডিনাইমাইট দিয়ে ভবনটি ভেঙ্গে ফেলবে সেনাবাহিনী।

২০১১ সালের ৩ এপ্রিল হাইকোর্ট এক রায়ে বিজিএমইএর বর্তমান ভবনটিকে ‘হাতিরঝিল প্রকল্পে একটি ক্যানসারের মতো’ উল্লেখ করে রায় প্রকাশের ৯০ দিনের মধ্যে ভেঙে ফেলতে নির্দেশ দেন। এর বিরুদ্ধে বিজিএমইএ লিভ টু আপিল করে, যা ২০১৬ সালের ২ জুন আপিল বিভাগে খারিজ হয়। রায়ে বলা হয়, ভবনটি নিজ খরচে অবিলম্বে ভাঙতে বিজিএমইএকে নির্দেশ দেওয়া যাচ্ছে। এতে ব্যর্থ হলে রায়ের কপি হাতে পাওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে রাজউককে ভবনটি ভেঙে ফেলতে নির্দেশ দেয়া হলো। পরে ভবন ছাড়তে উচ্চ আদালতের কাছে সময় চায় বিজিএমইএ। 

প্রথমে ছয় মাস এবং পরে সাত মাস সময়ও পায় তারা। সর্বশেষ গত বছর নতুন করে এক বছর সময় পায় সংগঠনটি। সে সময় তারা মুচলেকা দেয়, ভবিষ্যতে আর সময় চাওয়া হবে না। কারওয়ান বাজারে বিজিএমইএর বর্তমান ভবনটি দু’টি বেসমেন্টসহ ১৬ তলা। বিজিএমইএ ব্যবহার করে চারটি তলা। বাকি জায়গা দু’টি ব্যাংকসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। 
 

এই বিভাগের আরো খবর

পিআইবি’র মহাপরিচালক হলেন সাংবাদিক-লেখক জাফর ওয়াজেদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিশিষ্ট সাংবাদিক-লেখক জাফর ওয়াজেদকে প্রেস ইন্সটিটিউট বাংলাদেশ পিআইবি’র মহাপরিচালক পদে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। অন্যান্য...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is