ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-21

, ১৯ জিলহজ্জ ১৪৪০

কারা রক্ত দিতে পারবেন, কারা পারবেন না?

প্রকাশিত: ০৯:২৬ , ২০ এপ্রিল ২০১৯ আপডেট: ০৯:২৬ , ২০ এপ্রিল ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদন: রক্ত দেওয়া নিয়ে অনেকের মনে অনেক ভ্রান্ত ধারণা কাজ করে। কেউ কেউ মনে করেন রক্ত দিলে শরীরের ক্ষতি হয়; বরং রক্ত দিলে রয়েছে নানা রকম উপকার। রক্তাদনের মাধ্যমে একজন মানুষের জীবন বাঁচানো সম্ভব।

গবেষণায় বলা হয়, নিয়মিত রক্ত দিলে বিশেষ কিছু ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে যায়। রক্ত দিলে শরীরে নতুন লোহিত কণিকা তৈরির হার বাড়ে। এতে অস্থিমজ্জার রক্ত উৎপাদন সক্রিয় থাকে।

রক্ত দিলে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে হয়। এতে হৃদরোগ ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি অনেকটাই কমে যায় শরীরে হেপাটাইটিস-বি, হেপাটাইটিস-সি, জন্ডিস, ম্যালেরিয়া, সিফিলিস, এইচআইভি বা এইডসের মতো বড় কোনো রোগ রয়েছে কি না, সেটি রক্তদান উপলক্ষে জানা হয়ে যায়। এছাড়াও নিয়মিত রক্তদান করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। যাদের রক্তে আয়রনের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে, তাদের জন্য রক্তদান এক ধরনের চিকিৎসা।  

তবে এ বিষয়ে নির্দেশিকা রয়েছে।  

যারা রক্ত দিতে পারবেন:

১) ১৮ থেকে ৬০ বছরের যেকোনো সুস্থ দেহের মানুষ রক্ত দান করতে পারবেন।

২) শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ নিরোগ ব্যক্তি রক্ত দিতে পারবেন।

৩)  যাদের ওজন ৫০ কিলোগ্রাম এর বেশি।

৪) কোনো ব্যক্তি একবার রক্ত দেওয়ার চার মাস পর আবার রক্ত দিতে পারেন।

যারা রক্ত দিতে পারবেন না:

১) যাদের রক্তের হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ (পুরুষদের ক্ষেত্রে ১২ গ্রাম/ডে.লি. নারীদের ১১ গ্রাম ডে.লি.), রক্তচাপ ও শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক না তাদের রক্ত দেওয়া উচিত নয়।

২) শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত রোগ অ্যাজমা, হাঁপানি যাদের রয়েছে তারা রক্ত দিতে পারবে না।

৩) রক্তবাহিত জটিল রোগ, যেমন ম্যালেরিয়া, সিফিলিস, গনোরিয়া, হেপাটাইটিস, এইডস, চর্মরোগ, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, টাইফয়েড ও বাতজ্বর থাকলে রক্তদান করা যায় না।

৪) যাদের চর্মরোগ রয়েছে তারা দিতে পারবে না।

৫) নারীদের মধ্যে যারা গর্ভবতী এবং যাদের ঋতুস্রাব চলছে।

৬) সন্তান জন্মদানের পরবর্তী এক বছর পর্যন্ত।

৭) যারা কোনো বিশেষ ধরনের ওষুধ ব্যবহার করছেন। যেমন- অ্যান্টিবায়োটিক, কেমোথেরাপি,  হরমোনথেরাপি ইত্যাদি।

৮) যাদের ছয় মাসের মধ্যে বড় কোনো অপারেশন বা বড় কোনো দুর্ঘটনা হয়েছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is