৪০ বছরের শিল্পী জীবনে আড়াই হাজারেরও বেশী গান গেয়েছেন সুবীর নন্দী

প্রকাশিত: ১০:২২, ০৭ মে ২০১৯

আপডেট: ১২:১৭, ০৭ মে ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: কণ্ঠের জাদুকরী ছোঁয়ায় ঐন্দ্রজালিক সুরের বিস্তার ঘটিয়েছেন শিল্পী সুবীর নন্দী। গেয়েছেন একের পর এক কালজয়ী গান। সক্সঙ্গীতের সব ঘরাণায় ছিলেন স্বচ্ছন্দ। দীর্ঘ ৪০ বছরের শিল্পী জীবনে গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশী গান। একুশে পদক ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ অর্জন করেছেন অসংখ্য সম্মাননা। সুবীর নন্দী আর নেই, তবে তার গান বেঁচে থাকবে শ্রোতার হৃদয়ে স্বমহিমায়, বহুকাল।

আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি, কত যে তোমাকে বেসেছি ভালো, একটা ছিলো সোনার কন্যা মেঘবরণ কেশ সংগীত জীবনে এই রকম একের পর উপহার দিয়েছেন শ্রোতাপ্রিয় গান। ছাপিয়ে গেছেন মুগ্ধতার সীমানা। সঙ্গীত জীবনের ৪০ বছরের ক্যারিয়ারে প্রায় আড়াই হাজারেরও বেশি গান উপহার দিয়েছেন সুবীর নন্দী।

ভাটি অঞ্চলে জন্মেছিলেন গুণী এই শিল্পী। ১৯৫৩ সালে হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং থানায় নন্দীপাড়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে। সঙ্গীতে হাতখড়ি শৈশবেই, মায়ের কাছে।

তবে আনুষ্ঠানিকভাবে হাতেখড়ি ওস্তাদ বাবর আলী খানের কাছে। সুবীর নন্দী প্রথম রেডিওতে গান করেন ১৯৬৭ সালে। বেতার থেকে টেলিভিশন, তারপর চলচ্চিত্রেও উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। চলচ্চিত্রে প্রথম পে¬ব্যাক ১৯৭৪ সালে, ‘সূর্য গ্রহণ’ ছবিতে। পেশাগত জীবনে ব্যাংকার হলেও গানই ছিলো ভালোবাসার জায়গা।

১৯৮১ সালে তার প্রথম একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয় ‘সুবীর নন্দীর গান’ শিরোনামে। একের পর এক দারুণ সব গানে মাতিয়ে রেখেছেন শ্রোতাহৃদয়, আমৃত্যু।

বন্ধু হতে চেয়ে তোমার, পাখি রে তুই দূরে থাকলে, তুমি এমনই জাল পেতেছো সংসারে, আমার দু’চোখে অনন্ত মেঘ, এমন দারুণসব গান গেয়ে দেশের সঙ্গীতাঙ্গনকে করেছেন সমৃদ্ধ।

চলচ্চিত্রেে গানে কণ্ঠ দিয়ে সুবীর নন্দী চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। সংগীতে অবদানের জন্য ভূষিত হয়েছেন একুশে পদকে। তাঁর অকাল প্রয়াণে গভীর হলো হারানোর শোক। পাথর সমান নীরবতায়।

এই বিভাগের আরো খবর

নজরুলের চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় কবি কাজী...

বিস্তারিত
জাতীয় কবির ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় কবি কাজী...

বিস্তারিত
কবি শামসুর রাহমানের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বরেণ্য কবি শামসুর...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *