রূপপুুর প্রকল্পে দুর্নীতির প্রমাণ পেলে কঠোর ব্যবস্থা : গণপূর্তমন্ত্রী

প্রকাশিত: ০৭:৫৬, ২১ মে ২০১৯

আপডেট: ০৮:১২, ২১ মে ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আবাসিক ভবনের জিনিসপত্র কেনা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দুটি কমিটি কাজ শুরু করেছে। বৈশাখী টেলিভিশনকে একথা জানালেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। সাত কর্মদিবসের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা রয়েছে বলেও জানালেন গণপূর্তমন্ত্রী।

দেশের অন্যতম মেগা প্রকল্প রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসনের জিনিসপত্র ক্রয়ে স¤প্রতি দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। শুধু আসবাবপত্র কেনা ও তা ফ্ল্যাটে নিয়ে যেতে ব্যয় দেখানো হয়েছে ২৫ কোটি ৬৯ লাখ ৯২ হাজার টাকা। এর মধ্যে একটি বালিশের পেছনে ব্যয় দেখানো হয়েছে ছয় হাজার ৭১৭ টাকা। আর সেই বালিশ নীচ থেকে ফ্ল্যাটে ওঠাতে খরচ ৭৬০ টাকা উলে­খ করা হয়েছে।

গণমাধ্যমে এমন সংবাদ প্রচারের পর রোববার দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। রোববার এসব কমিটি কাজ শুরু করেছে বলে বৈশাখী টেলিভিশনকে জানালেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী স ম রেজাউল করিম। কমিটিকে সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মন্ত্রী জানালেন, অভিযোগ প্রমাণিত হলে অভিযুক্ত যেই হোক না কেন, কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

২০১৮ সালের অক্টোবরে রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছয়টি আবাসিক ভবনের জন্য আসবাবপত্র কিনতে দরপত্র আহŸান করা হয়।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ত্রাণ আত্মসাতে জড়িতদের তালিকা করছে দুদক

তাসলিমুল আলম: সরকারি চাল ও ত্রাণ...

বিস্তারিত
কক্সবাজারের ৩০ ভূমি কর্মকর্তা বদলি

কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজার জেলা...

বিস্তারিত
নৌ খাতের ১৪টি দুর্নীতির প্রতিবেদন দিলো দুদক

নিজস্ব সংবাদদাতা: বিনা শুল্কে স্থল...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *