ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬

2019-09-16

, ১৬ মহররম ১৪৪১

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে শেষ ম্যাচ খেললেন ম্যাশ

প্রকাশিত: ০২:৩৮ , ০৫ জুলাই ২০১৯ আপডেট: ০৪:২৫ , ০৬ জুলাই ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শেষ হলো বিশ্বকাপ ক্রিকেটের এবারের আসরে বাংলাদেশ দলের যাত্রা। সেই সাথে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে শেষ ম্যাচ খেললেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। এখনই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা না দিলেও ক্রিকেটের তীর্থভুমি লর্ডসেই শেষ হলো বিশ্বকাপের মঞ্চে মাশরাফি উপাখ্যান।

বিশ্বকাপে লর্ডসে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি ছিল এমন বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার শেষ ম্যাচ।  হারতে থাকা একটি দলকে জয়ের নেশা ধরিয়ে দেয়া অধিনায়কের  বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের ক্ষণটি ট্র্যাজিক এক উপ্যাখান হয়ে থাকলো, দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে। 

১৯ বছরের  ক্যারিয়ারে বাংলাদেশের হয়ে খেলেছেন চারটি বিশ্বকাপ। তবে এই পরিসংখ্যান দিয়ে তুলে ধরা যাবে না  একজন মাশরাফির গল্প। ক্যারিয়ার জুড়ে লড়াই করেছেন ইনজুরির সাথে, ফিরেছেন আগুন পাখি হয়েই। অধিনায়কত্ব নিয়ে দলকে ফিরিয়েছেন জয়ের পথে। তবে বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ হলেও এখনই অবসর নিচ্ছেন না মাশরাফি বিন মুর্তজা। 

২০০১ সালে অভিষেকের পর প্রথমবারের মতো ২০০৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলে সুযোগ পান মাশরাফি। কানাডার সাথে ম্যাচে দল হারলেও ৩৮ রানে দুই উইকেট শিকার করলেন নড়াইল এক্সপ্রেস। তবে সেখানেই শেষ হয় তার প্রথম বিশ্বকাপ যাত্রা। পরের ম্যাচে ওয়ার্ম আপের সময় পড়লেন ইনজুরিতে। ফিরে এলেন দেশে। 

২০০৭ ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপ। সে আসরেই প্রথমবারের মতো ক্রিকেট বিশ্ব জানলো, এগিয়ে আসছে বাংলাদেশ। এই মাশরাফির হাত ধরেই টুর্নামেন্টের ফেভারিট ভারতকে হারিয়েছিলো টাইগাররা। সেই ম্যাচে ৩৮ রানে চার উইকেট নিয়ে একাই ধসিয়ে দিয়েছিলেন বিশ্বসেরা ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপ।  সে আসরেই সুপার এইট পর্বে দক্ষিণ আফ্রিকাকেও হারায় বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে  তার ৩৫ রানের দুর্দান্ত ক্যামিও ইনিংস, জয়ের পথে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। 

২০১১ সালে ইনজুরির কারণেই  দেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যান মাশরাফি। তবে সে দুঃখ ভুলে ছিলেন চার বছর পর অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে। তার দুর্দান্ত নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিল বাংলাদেশ।
আপস 

এখনই অবসর নিচ্ছেন না মাশরাফি বিন মর্তুজা। তবে বিশ্বকাপ মঞ্চে আর দলকে নেতৃত্ব দেবেন না। কিন্তু দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে  অমোচনীয় এক নাম হয়ে থাকবেন। ক্রিকেট মাঠে শুধু দলকে নয়, তার বাহুর মধ্যেই যেন ধারণ করেছেন গোটা দেশ। সমস্ত অবয়বে কিংবা হাসি কিংবা ক্রোধে ও বেদনায়, সবকছিুতেই ঠাঁই পেত ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের এই বদ্বীপ। 
 

এই বিভাগের আরো খবর

খুশির জোয়ারে ভাসছেন ইংলিশরা

ক্রীড়া ডেস্ক: বিশ্বকাপ শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট অর্জন করতে ক্রিকেটের জনক ইংল্যান্ডের সময় লেগেছে ৪৪ বছর। ইংলিশদের এই অর্জনে খুশির জোয়ারে ভাসছেন...

টুর্নামেন্ট সেরা উইলিয়ামসন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বিশ্বকাপ ক্রিকেটের দ্বাদশ আসরে টুর্নামেন্ট সেরা হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। বিশ্বকাপ জুড়ে কিউইদের...

বিশ্বকাপের শিরোপা লড়াই শুরু; ব্যাট করছে নিউজিল্যান্ড

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ইংল্যান্ডে দ্বাদশ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালের মহারণে আজ টসে জিতে ব্যাট করছে নিউজিল্যান্ড। এর আগে টসে জিতে ব্যাট করার...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is