অস্ট্রেলিয়াকে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে ইংল্যান্ড

প্রকাশিত: ১১:৫৮, ১১ জুলাই ২০১৯

আপডেট: ১২:২৮, ১১ জুলাই ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বার্মিংহামের এজবাস্টনে ক্রিকেট দুনিয়া আজ এক নতুন ইংল্যান্ডকে দেখলো। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সেমিফাইনাল মানেই রোমাঞ্চকর উত্তেজনা, পেন্ডুলামের মতো ম্যাচের ভাগ্য একবার ঘুরবে এদিকে আরেকবার ঘুরবে অন্যদিকে। কিন্তু এর কোনটাই এদিন ছিলো না এজবাস্টনে। বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে একেবারে দুমড়ে মুচড়ে স্বপ্নের ফাইনালে ইংল্যান্ড পা রাখলো বীরের বেশেই।

ক্রিকেটের জন্ম এই ইংল্যান্ডেই, আবার ওয়ানডে ক্রিকেটেরও জন্ম তাদের হাতেই। এরপরও ক্রিকেট দেবতা কখনো ইংলিশদের প্রতি কেন যেনো সহায় হচ্ছিলো না। তবে এবার হয়তো ক্রিকেট দেবতা ইংল্যান্ডকে ভালো কিছু দেবেন বলেই পণ করে রেখেছে। তা না হলে গত চার বছর দূর্দান্ত ক্রিকেট খেলা ইংল্যান্ড এবারের বিশ্বকাপে বেশ কিছু ছন্দ পতনের পরও যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়।

এজবাস্টনে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া দলের দুঃস্বপ্নের সূচনা। ইংলিশ পেসারদের গতির আগুনে পুড়ে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের স্কোর বোর্ড বেরুতে পারেনি অন্ধকার থেকে। দলের খাতায় ১৪ রান যোগ হতেই টপ অর্ডারের শীর্ষ তিন ব্যাটসম্যান বিদায় নিলে সেমিফাইনাল দুঃস্বপ্নে পরিণত হতে থাকে অজিদের। এই অবস্থায় দলের হাল ধরেন স্পট ফিক্সিং বিতর্ক কাটিয়ে উঠে মাঠে ফেরা স্টিভেন স্মিথ। তাকে সঙ্গ দিতে থাকেন উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স ক্যারি। বলের আঘাতে রক্ত ঝরার পরও অস্ট্রেলিয়াকে ম্যাচে রাখার জন্য প্রাণপণ লড়াই চালিয়ে যান এই ব্যাটসম্যান। তবে তার বিদায়ের পর আবারো চাপে পড়ে অস্ট্রেলিয়া।

স্মিথ একাই লড়ে যাচ্ছিলেন ইংলিশ বোলারদের বিরুদ্ধে। পেসারদের পর ইংলিশ স্পিনার আদিল রাশিদের ঘূর্ণিতে ধস নামতে থাকে অজি ব্যাটিং লাইনের। স্মিথের সাথে জুটি গড়ে শেষ দিকে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ দু’শো পেরুতে সহায়তা করেন মিচেল স্টার্ক। স্মিথ ৮৫ তে রান আউট হন। এরপর স্টার্ক ২৯ রানে থামলে অজিরা অলআউট হয় ২’শ ২৩ রানে।

দূর্দান্ত ফর্মে থাকা ইংল্যান্ড দলের সামনে স্বপ্নের ফাইনালের হাতছানির জন্য ২শ’ ২৪ রান খুব বড় স্কোর ছিলো না। তবে পেশাদার ক্রিকেটের অন্যতম সেরা দল অস্ট্রেলিয়া চেয়েছিলো এই রানেই ইংলিশদের বেধে রাখতে। কিন্তু দুই ইংলিশ ওপেনার এদিন যেনো পণ করেই নেমেছিলেন কিছুতেই হার মানবেন না তারা। জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টোর ব্যাট চড়াও হতে থাকে অজি বোলারদের উপর। দু’জনের ব্যাটের তান্ডবে হতাশা বাড়তে থাকে স্টার্ক, কামিন্স, লায়ন, বেহেনড্রফদের। 

উইকেটের চারপাশে রানের ফোয়ারা ছিটিয়ে দুই ইংলিশ ওপেনার যোগ করেন ১’শ ২৪ রান। ৩৫ রানে স্টার্কের শিকার হন বেয়ারস্টো। আর এর মধ্য দিয়েই বিশ্বকাপ ক্রিকেটের এক আসরে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের কৃতিত্ব দেখান স্টার্ক। ২৭ উইকেট শিকার করে তিনি এই পথে পেছনে ফেলেন তারই স্বদেশি গ্লেন ম্যাকগ্রা’কে। বেয়ারস্টো বিদায় নিলেও অজি বোলারদের উপর তান্ডব থামেনি ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের। জয়ের পথে এগুতে থাকে স্বাগতিকরা। জেসন রয় ৮৫ রানে কামিন্সের শিকার হন। কিন্তু ততক্ষণে ইংলিশদের জয়ের চিত্রনাট্য তৈরী হয়ে গিয়েছে। ২৭ বছর পর বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালে খেলার সম্ভাবনাকে এবার আর শেষ হতে দেননি জো রুট ও অধিনায়ক এয়ন মরগ্যান।

চার বছর আগে যে দল গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছিলো সেই ইংলিশরাই এবার হেসেখেলে নিজ আঙিনায় বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালে পৌঁছে গেলো ৩২ ওভার ১ বলে। রুট ৪৯ ও মরগ্যান ৪৫ রানে অপরাজিত থেকে ইংল্যান্ডকে স্বপ্নের সোপানে পাড়ি দিতে সহায়তা করেন। আর এই প্রথম বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সেমিফাইনালে পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ পেলো অস্ট্রেলিয়া।

বিশ্ব ক্রিকেটে অজিদের অহম দুমড়েমুচড়ে ২৭ বছর পর বিশ^কাপের ফাইনালে ওঠার আনন্দে তাই বাঁধন হারা উল্লাস তো ইংলিশদেরই মানায়।

এই বিভাগের আরো খবর

খুশির জোয়ারে ভাসছেন ইংলিশরা

ক্রীড়া ডেস্ক: বিশ্বকাপ শ্রেষ্ঠত্বের...

বিস্তারিত
টুর্নামেন্ট সেরা উইলিয়ামসন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বিশ্বকাপ...

বিস্তারিত
দুর্দান্ত ভূমিকা রেখে ম্যাচ সেরা বেন স্টোকস

রীড়া প্রতিবেদক : বিশ্বকাপের ফাইনালে...

বিস্তারিত
ভারতকে বিদায় করে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক: ম্যানচেস্টারের ওল্ড...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *