ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-20

, ১৮ জিলহজ্জ ১৪৪০

এবছর ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ, বেশি ঝুঁকিতে শিশুরা

প্রকাশিত: ১১:৪৫ , ১৮ জুলাই ২০১৯ আপডেট: ১১:৪৫ , ১৮ জুলাই ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তের সংখ্যা গত বছরের তুলনায় এ বছর প্রায় দ্বিগুণ। সরকারি হিসাবে, জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছাড়িয়েছে। এরমধ্যে জুলাইয়ের প্রথম ১৫ দিনেই আক্রান্ত হয়েছে তিন হাজারের বেশি। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছে ৫ জন। সবচেয়ে ঝুঁকির মধ্যে আছে শিশুরা। চিকিৎসকরা বলেন, হাসপাতালে নিতে দেরি হওয়ায় শিশুর মৃত্যুঝুঁকি বাড়ে।

সাড়ে সাত বছরের কাজী রাহিবুল ইসলাম। ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে রাজধানীর একটি বেসরকারী হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে। রাহিবুলের বাবা চিকিৎসক কাজী সাইফুল ইসলাম জানান, শুরুতে জ্বর হওয়ার পর সুস্থ হয়ে যায় রাহিবুল। কিন্তু আবারো দেখা দেয় জটিলতা।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্যমতে, ডেঙ্গুতে আক্রান্তের মধ্যে বড় একটা অংশ শিশু। আর এই শিশুরা সহজেই ডেঙ্গু হেমোরেজিক বা শক সিনড্রোমে চলে যায়। অনভিজ্ঞতার কারণে হাসপাতালে নিতে দেরী হওয়ায় বাড়ে মৃত্যুঝুঁকি। চিকিৎসকরা বলেন, অনেক সময় সংকটাপন্ন শিশুকে বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করতেও চায় না কর্তৃপক্ষ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে বলা হয়, এ বছর ১৬ জুলাই পর্যন্ত ডেঙ্গু নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়া রোগীর সংখ্যা ৫১৬৬ জন। এরমধ্যে জুলাই মাসেই ৩ হাজারের বেশি ডেঙ্গু রোগী পাওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম হওয়া এবং স্কুল, খেলার মাঠসহ বিভিন্ন এলাকায় শিশুর যাতায়াতের ফলে ডেঙ্গুতে আক্রান্তের হার বেশি। এডিশ মশা প্রতিরোধে এখনো মানুষ সচেতন নন।

তিনি জানান, শিশুদের বিষয়ে অভিভাবকদের বাড়তি সতর্কতা নিতে হবে। এডিশ মশা সকালে ও বিকালে এবং রাতের উজ্জ্বল আলোতেও কামড়াতে পারে। এ বিষয়ে জনগণকে আরো সচেতন হতে হবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is