ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-25

, ২৩ জিলহজ্জ ১৪৪০

ভ্রমণে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে...

প্রকাশিত: ০৩:৩৭ , ০২ আগস্ট ২০১৯ আপডেট: ০৩:৩৭ , ০২ আগস্ট ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: ভ্রমণ মানেই রোমাঞ্চকর এক অভিজ্ঞতা। নতুনকে দেখা ও জানার আনন্দ সাথে বাঁধনহারা উত্তেজনা। নাগরিক জীবন থেকে বেরিয়ে নিজেকে একটু চাঙ্গা করতে হুটহাট করে ঘুরে বেড়াতে ভালোবাসেন অনেকেই। হয়তো সেভাবে প্রস্তুতিও নেয়া হয় না, এর আগেই বেরিয়ে পড়েন গন্তব্যে। ফলে সবকিছু ঠিকঠাক গুছিয়ে নেয়া হয় না। অনাকাঙ্ক্ষিত নানা ঘটনা যাতে ভ্রমণের আনন্দকে নষ্ট করে দিতে না পারে, সে বিষয়ে সতর্ক থাকুন। ভ্রমণের সময় চুরি কিংবা যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত  ঘটনা এড়াতে কি করা উচিত।

ব্যাগের ভেতর রাখা অতি মূল্যবান কিছু অচেনা ব্যক্তির সামনে না বের করাই বুদ্ধিমানের কাজ। ভ্রমণের সময় অনেকেই ল্যাপটপ, ক্যামেরাসহ বিভিন্ন দামী জিনিস নিয়ে থাকেন। এসব মূল্যবান জিনিসপত্র ব্যাগের ভেতরের দিকে পকেটে রাখুন এবং নিরাপদ ও পরিচিত মানুষ ছাড়া কারো সামনে না বের করাই ভালো। মনে রাখবেন, এসব নিরাপদে রাখার দায়িত্ব আপনার নিজেরই।

বারবার ব্যবহার করা হয় বলে মোবাইল, ক্যামেরার মতো গ্যাজেটগুলো ব্যাগের বাইরের দিকে পকেটে রাখতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন অনেকে। কিন্তু এটা যেমন আপনাকে স্বাচ্ছন্দ্য দেয়, তেমনি পকেটমারকে সেসব চুরি করে নিতেও সাহায্য করে। তাই মূল্যবান জিনিসপত্র ব্যাগের ভেতরের দিকে রাখাই ভালো।

ভ্রমণের সময় এমন জামা পরিধান করা ভালো, যা বেশ আরামদায়ক এবং যথেষ্ট পকেট রয়েছে। এতে খুব প্রয়োজনীয় আবার মূল্যবান কিছু ব্যাগের পকেটের বদলে জামার পকেটেই রাখতে পারেন।

সঙ্গে নেয়া অর্থ কয়েক ভাগ করে বিভিন্ন পকেটে রাখুন। এতে যদি ব্যাগের কোনো পকেট থেকে টাকা হারিয়েও যায়, তাহলে বিপাকে পড়তে হবে না আপনাকে।

না বুঝেই অনেক বেশী পোশাক, প্রসাধনী ও কম দরকারি জিনিস নিয়ে ফেলি কারণ তখন সব কিছুই দরকারি মনে হতে থাকে। মনে হয়, এটা তো ওখানে পাব না কিংবা যদি দাম বেশি থাকে! লোশন, টুথপেস্ট বড় টিউব না নিয়ে ছোট কৌটায় নিলে অনেক কম জায়গা লাগে ব্যাগে, এমন অনেক ব্যাগ গোছানোর কৌশল আছে যা আপনার ব্যাগকে ছোট ও সহজে বহনযোগ্য করবে। না জানার কারণে আমরা অনেকেই অপ্রয়োজনীয় জিনিস দিয়ে ব্যাগ বড় করে ফেলি।

দেশে দেশে আবহাওয়ার বৈচিত্রতা লক্ষ্য করা যায়, এর কারণ মূলত ভৌগলিক অবস্থান ও জলবায়ু। যেমন- আমাদের বিপরীত মেরুর দেশগুলোতে আবহাওয়াও হয় বিপরীত। আমাদের এখানে যখন গ্রীষ্ম সেখানে তখন হয়ত তুষারপাত হচ্ছে, আবার পাশাপাশি দেশেও আবহাওয়ার পার্থক্য হয়। যেমন- আমাদের দেশের শীত আর ইন্ডিয়ার দার্জিলিং এ একই সময়ে একই রকম শীত পড়ে না। ইন্ডিয়ায় শীত অনেক বেশী। তাই ভ্রমণের ক্ষেত্রে অবশ্যই আবহাওয়ার ব্যাপার মাথায় রাখা জরুরী।

নতুন কোন এলাকায় গেলে আমরা সহজেই বিভিন্ন রকম তথ্য দ্বারা বিভ্রান্ত হই। প্রায়শই দেখা যায় একই জায়গায় ভ্রমণের একেক রকম তথ্য দেওয়া থাকে। কারো কাছে পাহাড়ে ভ্রমণ করা কোন ব্যাপার নয়, আবার কারো কাছে আবার খুবই কঠিন কাজ। কেউ অনেক স্বস্তায় ভ্রমণ করেছেন তাই সবাইকে বলেন যে ঐখানের খরচ কম। আবার কেউবা পরিবার নিয়ে একই জায়গায় গিয়ে বলছেন তার খরচ হয়েছে অনেক বেশী। তাই আগে থেকে সব কিছু খোঁজ খবর নিয়ে যাওয়াই ভালো।

প্রয়োজনীয় কোন জিনিস নিতে ভুলে যাওয়া কিংবা ভ্রমণকৃত জায়গায় কোন জিনিস ফেলে আসা এটা নতুন ট্রাভেলারদের জন্য একটা সাধারণ ঘটনা। প্রয়োজনীয় কি কি জিনিস আপনার সাথে নিতে হবে তার একটা লিস্ট করে ফেলুন এবার ভ্রমণে যাবার সময় ও ফিরে আসার সময় লিস্ট চেক করে জিনিসগুলো ব্যাগবন্দী করুন। দেখবেন আর কোন জিনিসের কথা ভুলে যাবেন না।

কারণ বেশীরভাগ জায়গাতেই হোটেল ভাড়া ও যাতায়াত ভাড়া দরদাম করে ঠিক করতে হয়। অভিজ্ঞতা না থাকলে বা যার সাথে দরদাম করছেন সে যদি বুঝে ফেলে আপনি নতুন এসেছেন তখন অনেক ক্ষেত্রেই ঠকতে হয়। খাবারেও অনেক খরচ হয়ে যায় কারণ কম খরচে ভাল খাবারের হোটেলের খোঁজ থাকে না আমাদের বেশীরভাগের কাছেই।

ভ্রমণে সবসময় সবকিছু একবারে দেখে ফেলার একটা তাড়না মনে কাজ করে। যদি আর আসা না হয় কিংবা মাত্র তো কয়েকদিনের জন্য এসেছি, এমন একটা চঞ্চলতা আচ্ছন্ন করে রাখে। এতে কোন জায়গাই আর শান্তিমত দেখা হয়ে উঠে না। ফলে অনেক সময় ভ্রমণ শেষে রিল্যাক্স হওয়ার বিপরীতে আমরা আরও স্ট্রেসড হয়ে যাই। অনেকে আবার ভ্রমণের ধকল সইতে না পেরে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাই ভ্রমনে কোন তাড়াহুড়া নয়, আপনার সময় অনুযায়ী ভ্রমণের পরিকল্পনা করুন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ফের সিনেমায় ডিপজল

বিনোদন ডেস্ক: ঢালিউডের প্রভাবশালী অভিনেতা-প্রযোজক ডিপজল আবারও সিনেমায় মনোযোগী হচ্ছেন। একসঙ্গে প্রস্তুতি নিচ্ছেন সাতটি সিনেমা...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is