ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-20

, ১৮ জিলহজ্জ ১৪৪০

ঈদের ছুটিতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে কিছু নির্দেশনা

প্রকাশিত: ০৭:২৩ , ০৮ আগস্ট ২০১৯ আপডেট: ০৭:২৪ , ০৮ আগস্ট ২০১৯

মাবুদ আজমী: ডেঙ্গুতে আক্রান্ত আরো একজন মারা গেছে। টাঙ্গাইলের কুমুদিনী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আরিফ হোসেন কাজল নামের এক যুবক। সরকারি হিসেবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ জনে। গত ২৪ ঘন্টায় সারাদেশে নতুন করে আরো ২৩২৬ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এ অবস্থায় ঈদের ছুটিতে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের আহবান জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

ঈদের আগে সাধারণত হাসপাতালে রোগীর চাপ কম থাকে। তবে এবার দেশজুড়ে ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়ায় রাজধানীর হাসপাতালগুলোর চিত্র ভিন্ন। ডেঙ্গু রোগীর চাপে রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে তিল ধারনের ঠাঁই নেই।

রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালের লিফটের সামনে থেকে আশপাশের কোনো জায়গা ফাঁকা নেই। প্রতিদিন এই হাসপাতালে তিন শতাধিক মানুষ আসে ডেঙ্গুর পরীক্ষা করাতে। ভর্তি হচ্ছে দিনে শতাধিক রোগী। ৫০০ শয্যার এই হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীই ভর্তি আছে সাড়ে ৫০০। লোকবল সংকটে রোগীদের সেবা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে চিকিৎসকদের। এর উপর বেশ কয়েকজন চিকিৎসক ও স্টাফ ডেঙ্গু আক্রান্ত হওয়ায় আতংঙ্কও আছে তাদের মধ্যে। এমনটি জানিয়েছেন হাসপাতালটির পরিচালক আমীন আহম্মেদ খান।

এদিকে, বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) থেকে ঢাকায় শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে ডেঙ্গু রোগী ভর্তির কথা থাকলেও চাপ কম থাকায় এখনো করা হয়নি বলে জানান ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একে এম নাসির উদ্দিন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে আগস্টের প্রথম আটদিনে সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ হাজার ছাড়িয়েছে। আর পুরো জুলাই মাসেই এই সংখ্যা ছিলো ১৬ হাজার। সরকারি হিসেবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ জনে।

ঈদের ছুটিতে ডেঙ্গু যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য নাগরিকদের কিছু নিদের্শনা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

যারা ঢাকা ছাড়ছে তাদের জন্য করণীয়: বাথরুমের কমোড ঢেকে রাখা, বালতি, বদনা ও ড্রাম খালি করে উল্টো করে রাখা, ফ্রিজ খালি করে বন্ধ করে যাওয়া কিংবা পানি জমে থাকার জয়গায় ন্যপথলিন দিয়ে রাখা, টবগুলোতে যেন পানি জমতে না পারে সে ব্যবস্থা করা, রান্না ঘর, বারান্দায় কোথাও যেন পানি জমতে না পারে তা নিশ্চিত করা, ঘর বাড়ি পরিস্কার করা, অব্যবহৃত বোতল, কৌটা না রাখা। এতে মশার উৎপাদন বন্ধ হবে বলে আশা স্বাস্থ্য বিভাগের।

এই বিভাগের আরো খবর

মাগুরায় এ বছর পাটের বাম্পার ফলন

মাগুরা প্রতিনিধি: মাগুরায় এ বছর পাটের ফলন ভালো হয়েছে। কৃষকরা এখন পাট কাটা ও প্রক্রিয়াজাতকরণে ব্যস্ত সময় পার করছেন। অন্য বছরের তুলনায় এবার...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is