ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-20

, ১৮ জিলহজ্জ ১৪৪০

ডেঙ্গুর প্রকোপ এখনো কমেনি

প্রকাশিত: ১০:৩৬ , ১২ আগস্ট ২০১৯ আপডেট: ১০:৩৬ , ১২ আগস্ট ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদন : দেশের বিভিন্ন জেলায় এখনো বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগির সংখ্যা। জেলা ও উপজেলা হাসপাতালগুলোতে প্রতিদিনই ভর্তি হচ্ছে নতুন নতুন রোগি। এ পরিস্থিতিরে সরকারী হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগ সনাক্ত করতে আসা রোগিরা হয়রানির শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোগিদের অভিযোগ, চিকিৎসক ও পরীক্ষাগারের কর্মচারীদের সহায়তায় দালালরা রোগিদের বাইরে বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা করাতে বাধ্য করছেন। দালালদের দাপটে বন্ধ রাখা হয়েছে ডেঙ্গু সনাক্তকরণ পরীক্ষাগার। সরকারী চিকিৎসা সেবা কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হলেও সংশ্লিষ্ট কাউকেই পাওয়া যাচ্ছে না ডেঙ্গু পরীক্ষা কেন্দ্রে।

নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগিদের ভুল তথ্য দেয়া ও সহযোগিতা না করায় হয়রানীর শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ও পরীক্ষাগারে কর্মরতদের সহায়তায় রোগীদের বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ডেঙ্গু সনাক্তকরণে বাধ্য করছে দালালরা। 

রোগীদের অভিযোগ, হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক মোহাম্মদ নুরুজ্জামান চিকিৎসা পত্রে তিনটি পরীক্ষা দিয়ে বলেন, কোন ক্লিনিক বা ডায়াগনিস্টিক সেন্টার থেকে পরীক্ষা করে নিয়ে আসার জন্য। 

হাপাতালে পরীক্ষার কথা বললে তিনি জানান, ঈদের ছুটির কারণে পরীক্ষাগারে কেউ নেই। তার সামনেই দাঁড়ানো থাকে ক্লিনিক ও ডায়াগনিস্টিক সেন্টারের দালালরা। তারা রোগীদের কাছ থেকে চিকিৎসা পত্র নিয়ে সরকারের নির্ধারিত ফিতে পরীক্ষা করিয়ে দেয়ার প্রতিশ্র“তি বের করে নিয়ে যান। বৈশাখী টেলিভিশনের ক্যামেরায় ধরাা পড়ে এমন অনিয়ম। 

কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান পরীক্ষার সরঞ্জাম শেষ হয়ে যাওয়ায় বাইরে থেকে পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে। দালালদের সহায়তার জন্য হাসপাতালের ডেঙ্গু রোগ পরীক্ষার কক্ষটি সার্বক্ষনিক বন্ধ রাখা হয়। রোগীরা এসে তালা বন্ধ দেখে ফিরে যায়। পরীক্ষা কেন্দ্রটি ভুলে তালা বন্ধ করা হয়েছে জানিয়ে কর্মরত টেকনিশিয়ান বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

এদিকে, ঈদের ছুটিতে ঢাকা থেকে লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রামে ফিরে আসায় জেলায় বাড়ছে ডেঙ্গু রোগির সংখ্যা। জেলা ও উপজেলার হাসপাতালগুলোতে প্রতিদিনই ভর্তি হচ্ছে নতুন নতুন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগি।

তবে, চিকিৎসক জানালেন ভয় বা আতঙ্কের কিছু নেই। আক্রান্তদের প্রয়োজনীয় সব ধরনের সেবা ও চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ডেঙ্গু নিয়ে যখন সারাদেশের মানুষ আতঙ্কিত তখন একশ্রেণির অসাধু লোক সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে তৎপর। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হোক এমনটাই প্রত্যাশা সচেতনমহলের।
 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is