ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-25

, ২৩ জিলহজ্জ ১৪৪০

১৭ আগস্ট থেকে লবনযুক্ত চামড়া কিনবেন ট্যানারী মালিকরা

প্রকাশিত: ০৫:৪৯ , ১৪ আগস্ট ২০১৯ আপডেট: ০৫:৪৯ , ১৪ আগস্ট ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: চামড়া কেনায় আড়তদারদের অনাগ্রহের কারণে এবার বিপদে পড়েছে মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। বিক্রি করতে না পেরে দেশের বিভিন্ন এলাকায় তারা রাস্তায় চামড়া ফেলে চলে যান। চট্টগ্রাম ও সিলেটে লাখ লাখ চামড়া রাস্তা থেকে সরিয়ে নিয়েছে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। চামড়া না কেনার জন্য আড়তদাররা দোষ দেন ট্যানারি মালিকদের। আর ট্যানারি মালিকরা বলছে, এ মাসের ১৭ তারিখ থেকে লবণযুক্ত চামড়া কিনবেন তারা। 

রাজধানীর কাঁচা চামড়ার সবচেয়ে বড় বাজার পোস্তায় এখনো পড়ে আছে কোরবানির পশুর চামড়া। ক্রেতা না থাকায় মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া ফেলে রেখে চলে যান। দেশের কোথাও কাথাও চামড়া পুঁতে ফেলা হয় মাটিতে।

মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া সংগ্রহ করে তা আড়ত ও মোকামগুলোতে নেন। কিন্তু এবার মোকামে চামড়া কেনার আগ্রহ কম। 

সুমানগঞ্জে একটি মাদ্রাসার সংগ্রহ করা প্রায় ৯শ’ পিস চামড়া বিক্রি না হওয়ায় মাটিতে পুতে ফেলা হয়। আপস...
সিলেট মহানগরী এলাকায় প্রায় ১০ টন চামড়া রাস্তায় ফেলে দেয় মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। সিলেট সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে- দুর্গন্ধ ছড়ানোয় ব্যবসায়ীদের ফেলা দেয়া চামড়া সরিয়ে নেয়া হয়েছে। 

আড়তদাররা বলছেন, ট্যানারী মালিকরা পাওনা টাকা না দেয়ায় অর্থ সংকটে তারা চামড়া কিনতে পারেননি। কাঁচা চামড়া রফতানির সরকারি সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন তারা।

আন্তর্জাতিক বাজারে মন্দায় আগের বছরের চামড়া বিক্রি করতে না পারায় এবার কম সংগ্রহ হচ্ছে বলে জানান ট্যানারি মালিকরা। ধানমন্ডিতে সংবাদ সম্মেলনে কাঁচা চামড়া রপ্তানির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা।

আগামী ১৭ আগস্ট থেকে ট্যানারী মালিকরা লবনযুক্ত কাঁচা চামড়া সংগ্রহ শুরু করবেন বলে জানান ট্যানারি মালিকরা।

এই বিভাগের আরো খবর

মাগুরায় মাছ রক্ষায় অভয়াশ্রম

মাগুরা প্রতিনিধি: মাগুরায় মাছ রক্ষায় কুমার ও মধুমতি নদীতে জেলা মৎস বিভাগের উদ্যোগে গড়ে তোলা হয়েছে দু’টি অভয়াশ্রাম। নিষিদ্ধ করা হয়েছে মাছ...

ইলিশে ভরপুর বরিশালের মোকামগুলো

বরিশাল প্রতিনিধি: মৌসুমের মাঝামাঝি সময়ে এসে বরিশালের মোকামগুলো ভরে উঠছে রূপালী ইলিশে। হাসি ফুটেছে জেলে আর মাছ ব্যবসায়ীদের মুখে। সামনের...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is