পানি বণ্টনে ফর্মুলা বের করবে ঢাকা-দিল্লি

প্রকাশিত: ০১:০০, ২০ আগস্ট ২০১৯

আপডেট: ১২:১৮, ২০ আগস্ট ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ ও ভারত দু’দেশই লাভবান হয়, এমন একটি ফর্মুলা বের করে দু’দেশের মধ্যে অভিন্ন ৫৪টি নদীর পানি বণ্টনসহ অমীমাংসিত বিষয়গুলো সমাধান করা হবে বলে জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুরে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একথা বলেন।

আলোচনায় তিস্তার পানিবণ্টন নিয়ে কোনো অগ্রগতি আছে কিনা জানতে চাইলে জয়শঙ্কর বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমাদের একটি প্রতিশ্রুতি রয়েছে। এর কোনো পরিবর্তন হয়নি।’

জয়শঙ্কর বলেন,‘দুদেশের ৫৪টি অভিন্ন নদীর পানি বণ্টনে আমরা প্রস্তুত।’ তিস্তার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তিস্তার বিষয়ে আমাদের একটি অবস্থান আছে। এ বিষয়ে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এর কোনও পরিবর্তন হয়নি।’

রোহিঙ্গাদের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এই মানুষদের নিরাপদ ও সম্মানজনক প্রত্যাবাসন বাংলাদেশ-ভারত ও মিয়ানমারের জাতীয় স্বার্থে দরকার। আমরা রোহিঙ্গাদের বিষয়ে বাংলাদেশকে সহায়তা করতে প্রস্তুত।’

ভারতের আসামে ৪০ লাখেরও বেশি মানুষ নাগরিকত্ব সমস্যায় রয়েছে, এ নিয়ে বৈঠকে কোন আলোচনা হয়েছে কিনা, জানতে চাইলে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।’

নিরাপত্তা ইস্যুর বিষয়ে জয়শঙ্কর বলেন, ‘আমরা এনিয়ে আলোচনা করেছি এবং নিরাপত্তা বিষয়ে সহযোগিতা বাড়লে সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোকে দমনে সহযোগিতা বাড়বে।’

ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরের উদ্দেশ্য হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর সম্পর্কে আলোচনা করা।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সম্পর্ক কৌশলগত সম্পর্কে পরিণত হয়েছে।’

নিরাপত্তা, কানেক্টিভিটি, পানি বণ্টন সহযোগিতা, মানুষে মানুষে যোগাযোগ ইত্যাদি বিষয়ে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলোচনা করেন।

জ্বালানি নিরাপত্তার বিষয়ে জয়শঙ্কর বলেন, ‘আমাদের মধ্যে অনেকগুলো সরকারি ও বেসরকারি খাত নিয়ে আলোচনা চলছে। আমরা আরও আলোচনা করবো।’

জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমনে বাংলাদেশকে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার কথাও জানিয়েছেন সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরও এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় জানিয়ে বাণিজ্যিক সম্পর্ক সম্প্রসারণের কথা বলেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী ও স্বাধীনতার পঞ্চাশবছর পূর্তি উদযাপনে বাংলাদেশের সাথে একসাথে কাজ করার ইচ্ছাও প্রকাশ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, সোমবার রাতে তিন দিনের সফরে ঢাকায় এসেছেন ড. এস জয়শঙ্কর।

সোমবার রাতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

এ সময় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে বাংলাদেশে আমার প্রথম সফর এটি। দুই দেশের মধ্যে আলোচনা করার মতো অনেক বিষয় আছে। আমরা দুই দেশের সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে চাই।

জয়শঙ্কর আরও বলেন, বাংলাদেশে এই সফরে আসতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত।

 

এই বিভাগের আরো খবর

আরও ৫০ হাজার রোহিঙ্গার তালিকা দিলো বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: মিয়ানমারকে আরও ৫০...

বিস্তারিত
মহাসড়কে চালকদের মাদকাসক্তি পরীক্ষা শুরু

ফেনী প্রতিনিধি : মহাসড়কে শুরু হয়েছে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *