রাষ্ট্রায়ত্ত ৪ ব্যাংককে আর অর্থ দেবে না সরকার

প্রকাশিত: ০৫:২৬, ২৫ আগস্ট ২০১৯

আপডেট: ১০:৪৬, ২৫ আগস্ট ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, রূপালী, জনতা ও অগ্রণী এই চার ব্যাংকে আর পুনঃঅর্থায়ন করা হবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। নিজের টাকা দিয়েই চলতে হবে এসব ব্যাংককে। এছাড়া বাজেটেও এসব ব্যাংকের জন্য বরাদ্দও থাকবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

রোববার (২৫ আগস্ট) শেরে বাংলানগর এনইসি মিলনায়তনে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর চেয়ারম্যান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সঙ্গে আলোচনা শেষে মন্ত্রী এসব তথ্য জানান।

এ সময় কামাল বলেন, ‘এবার বাজেটে ব্যাংকগুলোর জন্য বরাদ্দ আছে। তবে সামনে আর বরাদ্দ রাখা হবে না। জনগণকে সেবা দিয়ে আয় করেই ব্যাংকগুলোকে চলতে হবে। চার ব্যাংককে সাতদিনের কর্মপরিকল্পনা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। সাতদিন পর তারা ব্যাংকের কর্মপরিকল্পনা আমার কাছে নিয়ে আসবে। সরকার এগুলো দেখবে এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবে। আমরা তাদের অর্থায়ন ছাড়া অন্য সহায়তা করবো।’

ব্যাংকগুলো প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, চারটি ব্যাংকের এলাকা অনেক বড়, প্রায় ২৫ শতাংশ। চারটি ব্যাংককে লোকসান কমিয়ে এনে ১৫ শতাংশ লাভ করতে হবে। জনগণকে সেবা দিয়ে মুনাফা বাড়াতে হবে। অর্থনীতি মানুষের জন্য। সরকার এমন কিছু করবে না, যাতে জনগণের উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।

এ সময় অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, ব্যাংক ঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার বিষয়ে শিগগরিই সার্কুলার জারি করা হবে।

খেলাপি ঋণ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, এক্সিট প্ল্যান (খেলাপি ঋণ কমানো পরিকল্পনা) বাস্তবায়িত না হওয়ায় খেলাপি ঋণ বেশি দেখাচ্ছে। এটি বাস্তবায়ন হলেই খেলাপি ঋণ অনেক কমে আসবে। এই এক্সিট প্ল্যান আদালতে আছে। এটা বিচারাধীন থাকায় এবিষয়ে কিছু বলা ঠিক হবে না। আইনের দ্রুত সুরাহা হলেই খেলাপি ঋণের বর্তমান চিত্র থাকবে না। আইনটি বাস্তবায়নাধীন থাকায় অনেক ব্যবসায়ী খেলাপি ঋণ পরিশোধ করছেন না।

এই বিভাগের আরো খবর

গোপালগঞ্জে আগ্রহ বাড়ছে কচুর লতি চাষে

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জে...

বিস্তারিত
‍‍"খেলাপী ঋণ ইচ্ছা করেই শোধ করা হচ্ছে না"

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে প্রকৃত ঋণ...

বিস্তারিত
কর্ণফুলি টানেলের কাজ ৪৮ ভাগ শেষ: সংসদীয় কমিটি

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: কর্ণফুলি নদীর...

বিস্তারিত
কর্ণফুলি টানেলের কাজ ৪৮ ভাগ শেষ: সংসদীয় কমিটি

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: কর্ণফুলি নদীর...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *