গোপালগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন অব্যাহত 

প্রকাশিত: ১০:১৮, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০২:৩৯, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে চতুর্থ দিনের মতো আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করছেন গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনে সমর্থন জানিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে যোগ দিয়েছেন কয়েকজন শিক্ষক।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, উপাচার্য অনিয়ম, দুর্র্নীতি ও স্বজনপ্রীতি করছেন। তিনি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক বললেন, বহিরাগতদের হামলার কারণে শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তারা।

আর উপাচার্য খোন্দকার নাসির উদ্দিন বলছেন, শিক্ষার্থীদের সকল দাবি মেনে নেয়ার পরও একটি মহল পরিস্থিতি অন্যদিকে নেয়ার চেষ্টা করছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার মোতায়েন রয়েছে। শিক্ষার্থীদের ওপর বহিরাগতদের হামলার ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এদিকে, গোপালগঞ্জ শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে মশাল মিছিল ও উপাচার্যের কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা। এ সময় উপাচার্যের দ্রæত অপসারণের দাবি জানান তারা।

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির পদত্যাগের দাবিতে ৫ম দিনের মত আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে। রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসেই অবস্থান করে বিক্ষোভ করছে। 

এদিকে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়। হলের বিদ্যুৎ, পনি বন্ধ করে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্র্তপক্ষ।

তবে শিক্ষার্থীরা হল না ছেড়ে ক্যাম্পাসেই অবস্থান নেয়। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে তারা। শিক্ষার্থীদের দাবির সাথে সমর্থন জানিয়ে পদত্যাগ করেছেন সহকারী প্রক্টর হুমায়ুন কবির। 
এছাড়া কুষ্টিয়ায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এই বিভাগের আরো খবর

টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: দূষণের কারণে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *