ফেলোশিপে বাড়ে দক্ষতা

প্রকাশিত: ০৩:৫৬, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

আপডেট: ০৩:৫৬, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক:  শিক্ষার্থীরা যেমন বৃত্তি পেয়ে কম খরচে বা বিনা খরচে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পান, ফেলোশিপ এই সুযোগের চেয়ে আলাদা

নতুন নতুন পেশাদার নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার জন্য এই অভিজ্ঞতা বেশ কার্যকরযেকোনো ফেলোশিপের মাধ্যমে নিজের দক্ষতা যেমন বাড়ানো যায়, তেমনি নিজের কাজের উদ্যোগ নিয়ে নতুন নতুন ধারণা বিকাশের সুযোগ বাড়ে

ইন্টারনেটে পছন্দসই ফেলোশিপ আপনি নিজেই খুঁজে পেতে পারেনদুই সপ্তাহ থেকে শুরু করে কয়েক মাস মেয়াদি ফেলোশিপও আছেচাহিদা অনুযায়ী যোগ্যতা যদি থাকে, তাহলে ঘরে বসেই আবেদন করতে পারেন

যুক্তরাজ্যে তরুণ শিক্ষার্থী ও পেশাজীবীদের জন্য বিভিন্ন ফেলোশিপ দেওয়া হয়এর মধ্যে শেভনিং ফেলোশিপ বেশ আলোচিতশেভনিং অক্সফোর্ড সেন্টার ফর ইসলামিক স্টাডিজ ফেলোশিপ, সাউথ এশিয়া জার্নালিজম ফেলোশিপে প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে অনেক শিক্ষার্থী ও পেশাজীবী আবেদন করে থাকেনবিস্তারিত জানা যাবে এই ওয়েবসাইটে: chevning.org

 

আবার ঢাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট বিভিন্ন ফেলোশিপের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে থাকেফুলব্রাইট টিচিং এক্সিলেন্স অ্যান্ড অ্যাচিভমেন্ট প্রোগ্রাম, হুবার্ট এইচ হামফ্রে ফেলোশিপ, ইন্টারন্যাশনাল লিডার্স ইন এডুকেশন প্রোগ্রাম, ইন্টারন্যাশনাল ভিজিটর লিডারশিপ প্রোগ্রাম, ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ

ফেলো প্রোগ্রামসহ বিভিন্ন ফেলোশিপের জন্য সারা বছর বিভিন্ন সময়ে আবেদনপত্র গ্রহণ করা হয়বিস্তারিত: bd.usembassy.govএছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে ফেলোশিপ প্রদান করা হয়, যা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে নিয়মিত প্রকাশ করা হয়

অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জাপান, ভারতসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও সরকার ফেলোশিপ দিয়ে থাকেএক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দেশের বাংলাদেশের দূতাবাস ও হাইকমিশনের ওয়েবসাইটে নিয়মিত চোখ রাখতে হবেএছাড়া বিভিন্ন নামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ফেলোশিপ বিভাগে বিভিন্ন খবর পাওয়া যাবে

 

ফেলোশিপ পেতে যা যা লাগবে

সাধারণত ফেলোশিপ বিভিন্ন পেশাজীবী ও গবেষকদের প্রদান করা হয়এ জন্য কয়েক বছরের কাজের অভিজ্ঞতা যেমন থাকতে হবে, তেমনি বিভিন্ন সামাজিক কাজে যুক্ত হওয়ার অভিজ্ঞতা থাকা জরুরিশিক্ষাগত যোগ্যতা বা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলাফল আবেদনে তেমন গুরুত্বপূর্ণ না হলেও ভালো সিজিপিএ আপনাকে কখনো কখনো এগিয়ে রাখবেএ ছাড়া বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সদস্য পরিচিতি ফেলোশিপ আবেদনে জোর বাড়ায়

 

ফেলোশিপ প্রক্রিয়া

সাধারণত অনলাইনে বিভিন্ন ফেলোশিপের আবেদন গ্রহণ করা হয়অনলাইনে বাছাইয়ের পর বাছাইকৃত প্রার্থীদের ভাইভা গ্রহণ করা হয়ে থাকেভাইভার পরেই নিশ্চিত করা হয় ফেলোশিপআবেদনের প্রক্রিয়ায় জমা দেওয়া সব কাগজপত্র ও সুপারিশপত্র বেশ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হয়কোনো কোনো ফেলোশিপে ভাষা দক্ষতা সনদ হিসেবে আইইএলটিএস বা টোয়েফল স্কোর সংযুক্ত করতে হয়

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *