ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতদের বাড়িতে শোকের মাতম

প্রকাশিত: ০৮:২৩, ১৩ নভেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৩:৩৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক:  কেউ ফিরছিলেন একা, কেউবা পরিবার-পরিজন নিয়ে। কেউ আবার যাচ্ছিলেন সন্তানের প্রিয় মুখটি দেখতে। কিন্তু সবই এখন কালো মেঘে ঢাকা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় মন্দবাগ স্টেশনে দুটি আন্ত:নগর ট্রেনের সংঘর্ষে নিভে গেছে ১৬ জনের জীবনপ্রদীপ।

মঙ্গলবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যায়ক্রমে মরদেহগুলো সনাক্ত ও পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রাতেই নিজ নিজ এলাকায় তাদের দাফন করা হয়। এসব পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। নিহতদের ৭ জনের বাড়ি চাঁদপুর। সেখানে মরদেহ পৌঁছালে স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে পরিবেশ।

দুর্ঘটনায় বেঁচে ফিরলেও যন্ত্রণা সহ্য করতে পারছেন না অনেকে। আহতদের অনেকেই গুরুতর জখম নিয়ে পড়ে আছেন হাসপাতালের বিছানায়। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত ৭ জন ঢাকার সিএমইচএ, ৩ জন পঙ্গু হাসপাতালে ও  ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে ৩ জন। এরা সবাই ফিরেছেন ভয়ানক অভিজ্ঞতা নিয়ে।  

দুর্ঘটনার পর তুর্ণা নিশিথা ট্রেনের চালকসহ তিনজনকে বরখাস্ত করা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে ৫টি তদন্ত কমিটি। আহত যাত্রীদের চিকিৎসা সহায়তা ও নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে ১ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দেন রেলপথ মন্ত্রী।

দুর্ঘটনার সময় দুই ট্রেনের বেশিরভাগ যাত্রীই ঘুমিয়ে ছিলেন। তূর্ণা নিশীথার ইঞ্জিন ও উদয়ন এক্সপ্রেসের চারটি বগি দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যার অবনতি

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভারী বৃষ্টি ও উজান...

বিস্তারিত
অনলাইনে কোরবানীর পশু কেনার আহবান

নিজস্ব প্রতিবেদক:করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩০, শনাক্ত ২৬৮৬

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসে...

বিস্তারিত
বিশ্ব জনসংখ্যার ওপর করোনার বিরূপ প্রভাব 

বিউটি সমাদ্দার: বিশ্ব জনসংখ্যার ওপর...

বিস্তারিত
চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণার ফাঁদ 

কাজী ফরিদ: করোনার কারণে বাড়ছে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *