‘জলবায়ুর ঝুঁকি মোকাবেলায় ব্যর্থ হলে টেকসই উন্নয়ন হুমকিতে পড়বে’

প্রকাশিত: ০৪:২২, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৮:১০, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ব্যর্থ হলে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হুমকিতে পড়বে। রোহিঙ্গাদের কারণে বাংলাদেশের পরিবেশ ও অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে জানিয়ে জলবায়ুর ঝুঁকি মোকাবেলায় কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। স্পেনে অনুষ্ঠিত জলবায়ু বিষয়ক শীর্ষ সম্মেলনে এসব বলেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতিসংঘের জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত শীর্ষ সম্মেলন কপ- টোয়েন্টি ফাইভের উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দেন শেখ হাসিনা। স্থানীয় সময় সোমবার সকালে সম্মেলনস্থলে পৌঁছালে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান স্পেনের প্রেসিডেন্ট পেড্রো সেনচেজ।

উদ্বোধনী অধিবেশনে জাতিসংঘ মহাসচিব, স্পেনের প্রেসিডেন্টও কপ টোয়েন্টি ফাইভের প্রেসিডেন্ট বক্তব্য রাখেন। পরে রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের গোলটেবিল আলোচনায় অংশ নিয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় বাংলাদেশের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ বিশ্বনেতাদের সামনে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ঝুঁকির মুখে পড়েছে বাংলাদেশের অর্থনীতি। দ্রুত এর সমাধান করা না গেলে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জন ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

রোহিঙ্গাদের কারণে কক্সবাজারের পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে জানিয়ে, বাংলাদেশের সংসদে নেয়া প্ল্যানেটারি ইমার্জেন্সি প্রস্তাবনা সমর্থনে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। জলবায়ুর ঝুঁকি মোকাবেলায় গৃহীত প্রস্তাবনাগুলো বাস্তবায়নের তাগিদ দেয়ার পাশাপাশি নতুন কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

এর আগে ক্লাইমেট ভলনারেবল ফোরাম এবং জাতিসংঘের গ্লোবাল কমিশন অন এডাপ্টেশনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত বিশেষ অধিবেশনে যোগ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ। তবে সরকার নিজস্ব অর্থায়নেই ঝুঁকি মোকাবেলায় কাজ করছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে ঝুঁকিগ্রস্ত দেশের মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ। কিন্তু তার সরকার নিজস্ব অর্থায়নেই যাবতীয় ঝুঁকি মোকাবেলায় সফল হয়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি মোকাবিলায় বিশ্ব নেতাদের প্রতি মুহূর্তের নিষ্কৃয়তা মানবজাতিকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নিরাপদ ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হলে নতুন প্রজন্ম আমাদের ক্ষমা করবে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নতুন প্রজন্মের জন্য নিরাপদ ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হলে আমাদের শিশুরা ক্ষমা করবে না। আমাদের (বিশ্ব নেতাদের) প্রতি মুহূর্তের নিষ্কৃয়তা পৃথিবীর প্রত্যেকটি মানুষের জীবিত মানুষকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। কাজ করার এখনই সময়।

তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন বিশ্বের জন্য এক নির্মম বাস্তবতা। এটি এখন মানবজীবন ও পরিবেশ, বাস্তুতন্ত্র এবং প্রাকৃতিক সম্পদের অপূরণীয় ক্ষতির কারণ।

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে অভিবাসী সংকট মোকাবিলায় একটি যথাযথ কাঠামো তৈরি করতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, কার্যকর অভিযোজন কৌশল অনুযায়ী অভিবাসীদের মাইগ্রেশন হলে আমরা অবশ্যই এর প্রশংসা করবো। আক্রান্ত জনগোষ্ঠীর অভিযোজন ক্ষমতা বাড়ানোর ওপর জোর দিতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, বাস্তুচ্যুত ব্যক্তিদের স্থানান্তর ও সুরক্ষা নিশ্চিতে বিশ্ব সম্প্রদায়কে মনোযোগ দেওয়া দরকার। জলবায়ু পরিবর্তনে বাস্তুচ্যুত মানুষের প্রয়োজনে আমাদের একটি উপযুক্ত কাঠামো তৈরি নিয়ে আলোচনা শুরু করা দরকার।

এই বিভাগের আরো খবর

হজযাত্রীর কোটা ১০ হাজার বাড়িয়েছে সৌদিআরব

অনলাইন ডেস্ক: সৌদি সরকার ২০২০ সালে...

বিস্তারিত
ইলেক্ট্রনিক ওয়ার্ক পারমিট দেবে মালয়েশিয়া

অনলাইন ডেস্ক: আগামী বছরের (২০২০) শুরুর...

বিস্তারিত
দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্পেনে জলবায়ু...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *