বঙ্গবন্ধুই বাঙ্গালীকে পরাধীনতার শৃঙ্খলমুক্ত করেছিলেন

প্রকাশিত: ১১:৩১, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯

আপডেট: ১১:৫০, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯

বিউটি সমাদ্দার: এবার এক বিশেষ সময়ের মুখে এসেছে বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। যিনি স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন এবং দেখিয়েছিলেন মানুষকে, সেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী আসছে মার্চে।

স্বাধীনতার জন্য তাঁর দীর্ঘ ত্যাগী সংগ্রাম একাত্তরে খুঁজে পায় কাংখিত ঠিকানা। বঙ্গবন্ধুর নামেই জীবন উৎসর্গ করে স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনতে জাতি, ধর্ম, বর্ণ, লিঙ্গ নির্বিশেষে এই ভুখন্ডের মানুষ একাত্তরের রক্তক্ষয়ী মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল।

কী করে বাঙ্গালির স্বাধীনতার ঠিকানা, মুক্তির প্রতীক হয়ে উঠেছিলেন বঙ্গবন্ধু? যাদুর ছোঁয়ায় কোন স্বপ্নের বীজ বুনে দিয়েছিলেন তিনি মানুষের হৃদয়ে? বিজয়ের পথ তৈরি করা সেই মহানেতার অবদানগুলোকে ঘিরে ইতিহাসের কিছু স্বাক্ষীর সাক্ষাৎকার ভিত্তিক ধারাবাহিক আয়োজন।

গোপালগঞ্জের পশ্চাদপদ গ্রামের শেখ মুজিবই পাকিস্থানী শাসকদের সবচেয়ে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে সেটা আর কেউ না বুঝলেও বুঝেছিলেন পাকিস্থানি শামরিক জান্তা আইয়ুব খান। তাইতো শেখ মুজিবকে কারাবন্দি রাখাই ছিল পাকিস্তানী জান্তাদের কৌশল, এক গেড়িলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের পর্যবেক্ষণ।

এই মুক্তিযোদ্ধার মতো ইতিহাসের আরও সাক্ষীর পর্যবেক্ষণ শেখ মুজিবই বাঙ্গালীকে পরাধীনতার শৃঙ্খলমুক্ত করতে ছিলেন আপোষহীন অকুতোভয়।

বাঙ্গালী মুক্তির আকাংখার ভাষা পড়তে এবং তাদেরকে জাগ্রত করে কাজে লাগানো ছিল বঙ্গবন্ধুর অনবদ্য নেতৃত্ব।

সার্বজনীন রাজনীতি এবং বিরোধী মত এবং পথের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে শেখ মুজিব নিজের চিন্তা এবং আর্দশকে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন সবার মাঝে।

এই বিভাগের আরো খবর

নেতাদের মধ্যে নেতা হয়ে উঠেছিলেন বঙ্গবন্ধু

কাজী বাপ্পা: এবার এক বিশেষ সময়ের মুখে...

বিস্তারিত
কথা, দর্শন আর প্রজ্ঞায় আকৃষ্ট করতেন বঙ্গবন্ধু

পার্থ রহমান: এবার এক বিশেষ সময়ের মুখে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *