থানায় হাজতির রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশিত: ০৭:৩২, ১৯ জানুয়ারি ২০২০

আপডেট: ০৭:৫২, ১৯ জানুয়ারি ২০২০

ফররুখ বাবু : গ্রেফতারের পর থানা হাজতে মৃত্যু। পুলিশের বলছে, আত্মহত্যা। আর পরিবার বলছে, হত্যা। এমন পাল্টাপাল্টি অভিযোগের ঘটনা ঘটেছে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায়। মৃতব্যক্তির নাম আবু বক্কর সিদ্দিকী, তিনি এফডিসির কর্মচারী। এক নারীর করা তথ্য প্রযুক্তি আইনে শনিবার রাতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কিন্তু রোববার সকালেই তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে। জানা যায় এই হাজতির মৃত্যু নিয়ে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য।

এফডিসির ফ্লোর ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত ছিলেন আবু বক্কর সিদ্দিকী। আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পোলিং অফিসারের দায়িত্ব পালনেরও কথা ছিলো। দুই সন্তানের জনক আবু বক্কর প্রায় ছয় মাস পরিবার থেকে আলাদা থাকতেন। তার বড় ছেলে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী। আর ছোট ছেলে পড়ে ক্লাস সেভেনে।

জানা গেছে, রোকসানা আক্তার মায়া নামে এক নারীর সাথে সম্পর্ক থাকায় গত ছয় মাস স্ত্রী ও সন্তানদের থেকে আলাদা থাকতেন তিনি। তবে দুই ছেলের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ ছিলো। নিহতের স্ত্রী আলেয়া ফেরদৌসী জানিয়েছেন এসব কথা। তবে সে কোথায় থাকতো তা জানতো না পরিবারের সদস্যরা।

শনিবার রাতে আবু বক্করকে গ্রেফতার করলেও পরিবারের কোন সদস্যকে অবগত করেনি থানা পুলিশ। নিহতের স্ত্রী আলেয়ার অভিযোগ, তার নামে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। এমনকি তার মৃত্যুও রহস্যজনক।

পুরো ঘটনার পেছনে রোকসানা আক্তার মায়া নামের এক নারী জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন নিহতের শ্বশুর আব্দুল আলী। তিনিও এক সময় এফডিসিতে চাকরি করতেন। তার অভিযোগ রোকসানা নামে ওই বিবাহিত নারী তার রূপের মায়ায় আর মেয়ে জামাই আবু বক্করের টাকার কারণে তাকে ফাঁসিয়েছে।

এদিকে, মৃত্যুর খবর পেয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছুটে আসে আবু বক্করের সহকর্মীরা। তারা জানান, মনিবার রাত ৮টার দিকে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা থেকে এফডিসি অফিসে মোবাইল ফোনে আবু বক্কর সিদ্দিকীকে গ্রেফতার করার বিষয় জানানো হয়। রোকসানা আক্তার মায়া নামের এক নারীর করা তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা যায়। এরপর রোববার সকাল ৯ টার দিকে তেজগাঁও থানা পুলিশ এফডিসতে গিয়ে জানায়, আবু বক্কর আত্মহত্যা করেছে।

তবে, তেজগাঁও জোনের ডিসি বিপ্লব বিজয় তালুকদার বৈশাখী টেলিভিশনকে জানান, আবু বক্কর আত্মহত্যা করেছে। তার নামে ধর্ষণ ও তথ্য প্রযুক্তি আইনে এক নারী মামলা করলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

শুধু মৃত্যুই নয়, আবু বক্করের ময়নাতদন্ত করা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। ভোর রাত ৪টার দিকে তার মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলেও, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তার ময়নাতদন্ত এখনো সম্পন্ন হয়নি।

 

এই বিভাগের আরো খবর

হাতিরঝিলে ছুরিকাঘাতে কিশোরের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর হাতিরঝিল...

বিস্তারিত
বিপুল টাকা হাতিয়ে নিয়েছে কয়েকজন শিক্ষক

কাজী ফরিদ: উন্নয়নমূলক কাজে অতিরিক্ত...

বিস্তারিত
বিটিআরসিকে এক হাজার কোটি টাকার চেক দিল জিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিটিআরসির কাছে এক...

বিস্তারিত
রাজধানীর ১১ টি এলাকা ডেঙ্গু ঝুঁকিপূর্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর উত্তর ও...

বিস্তারিত
খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক: জিয়া দাতব্য সংস্থা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *