গ্রন্থমেলা বাঙালি শিল্প সংস্কৃতিকে পৌঁছাবে বিশ্ব দরবারে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ০৬:৪১, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপডেট: ০৭:১০, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: অমর একুশে গ্রন্থমেলার মধ্য দিয়ে আমাদের শিল্প সংস্কৃতি কেবল বাংলাদেশের মধ্যেই নয়, বিশ্ব দরবারে পৌঁছে যাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বাঙালির যা কিছু অর্জন তা রক্ত দিয়েই অর্জন করতে হয়েছে। ভাষা পাওয়ার ক্ষেত্রেও রক্ত দিতে হয়েছে বলেও জানান তিনি। আজ (রোববার) অমর একুশে বইমেলা-২০২০ অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলা ভাষা আজ দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে মানুষের প্রাণে অনুরণিত হয়। ২১ ফেব্রুয়ারি এখনআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস স্বীকৃতি আদায়ের জন্য কানাডা প্রবাসী সালাম রফিকসহ কয়েকজন বাঙালি উদ্যোগ গ্রহণ করেন। পরবর্তীকালে আওয়ামী লীগ সরকার বিষয়ে জাতিসংঘে প্রস্তাব উত্থাপন করে। যার ফলে ইউনেস্কো ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বের সকল ভাষাগোষ্ঠীর মাতৃভাষা সংরক্ষণ, বিকাশ চর্চার লক্ষ্যে আমরা ঢাকায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেছি। জ্ঞানচর্চা পাঠচর্চা বিস্তারে গ্রন্থমেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। গ্রন্থমেলা এমন একটি মাধ্যম, যা জাতির অগ্রগতির উন্নয়নের সঙ্গে ওতপেপ্রতভাবে জড়িত। গ্রন্থমেলা আমাদের অস্তিত্ব, জীবনবোধ এবং চেতনাকে জাগ্রত করে।

মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস বঙ্গবন্ধুকে যথাযথভাবে তুলে ধরতে প্রকাশক লেখকদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু রচিতআমার দেখা নয়া চীনগ্রন্থটির মোড়ক উম্মেচন করা হয়। মুজিববর্ষ উপলক্ষে এবারের বইমেলা উৎসর্গ করা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। এ সময় বইয়ের বিষদ বর্ণনা দেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, চীনে যাওয়ার আগে পাকিস্তানিরা তাকে (বঙ্গবন্ধু) নানাভাবে অত্যাচার-নির্যাতন করেছে, তারপরও তিনি চীনে গিয়ে নিজের দেশের দুর্নাম করেননি। এখন তো অনেকে বিদেশে গিয়ে যা ঘটেছে, তার চেয়ে আরও বেশি করে বদনাম গায়।

ছাত্রজীবনে বইমেলার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ছাত্রজীবনে কোনো দিন সারাদিন আবার কোনো দিন ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাটাতাম। কিন্তু এখন সেই স্বাধীনতা নেই।

গ্রন্থমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ১০ জনকে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবার পুরস্কারের অর্থ মান বাড়িয়ে তিন লাখ টাকা করা হয়েছে। পুরস্কারে অর্থের সাথে একটি ক্রেস্ট এবং সনদ দেয়া হয়। উদ্বোধনী শেষে মেলা পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এবারের একুশে বইমেলা সর্বকালের সর্বশেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

রাজধানীতে ফাঁকা রাস্তায় দুই গাড়ির সংঘর্ষ

অনলাইন ডেস্ক: সাধারণ ছুটির মধ্যেও...

বিস্তারিত
খাদ্য সংকটে রাজধানীর পথ কুকুর-বিড়ালগুলো

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসের...

বিস্তারিত
ঢাকা ছেড়েছেন তিন শতাধিক জাপানি নাগরিক

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত
রাজধানীতে সেনাবাহিনীর টহল জোরদার

আশিক মাহমুদ: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ...

বিস্তারিত
আরো দুইজন করোনা রোগী শনাক্ত

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশে গত ২৪ ঘন্টায়...

বিস্তারিত
হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হলো আহত এসিল্যান্ডকে

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের ঝিকরগাছায়...

বিস্তারিত
ঘরে থাকার নির্দেশনা মানছে না অনেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *