অনুমোদন পাওয়ার ১৩ বছর পরেও প্রতিষ্ঠিত হয়নি হসপিটাল

প্রকাশিত: ০৮:৫৮, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপডেট: ০৯:৩৬, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা: অনুমোদন পাওয়ার দীর্ঘ ১৩ বছর পরও প্রতিষ্ঠিত হয়নি নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জের ২০ শয্যার হাসপাতাল। কিন্তু হাসপাতাল না থাকলেও চলছে চিকিৎসক নিয়োগ। এপর্যন্ত হাসপাতাল দুটিতে ১২ জন চিকিৎসককে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। 

উপজেলার ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জ এবং আড়াইহাজার এলাকায় ২০০৭ সালে হাসপাতাল তিনটি নির্মাণের পরিকল্পনা অনুমোদন করা হয়। এর মধ্যে আড়াইহাজারে হাসপাতাল নির্মিত হলেও এখনো আলোর মুখ দেখেনি ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জের হাসপাতাল দুটি। তবে হাসপাতাল দুটিতে চিকিৎসকের পদ রয়েছে ১২টি। 

বর্তমানে এই দুটি হাসপাতালে কাগজে-কলমে ছয়জন চিকিৎসকও রয়েছেন। তারা বেতনও নিচ্ছেন। তবে, সেবা দিচ্ছেন অন্য হাসপাতালে।

হাসপাতাল এখনো নির্মাণ না হওয়ার জন্য ভূমি অধিগ্রহণ জটিলতাকেই দায়ি করলেন জেলা সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইমতিয়াজ । তবে, হাসপাতাগুলোতে চিকিৎসক পদায়ন করা হচ্ছে বলে স্বীকার করেছেন তিনি। 

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো: জসিম উদ্দিন জানালেন, হাসপাতাল নির্মাণের জন্য সিভিল সার্জনের পক্ষ থেকে তিন একর জমির আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু চাহিদা অনুযায়ি না পাওয়ায় জমি দেয়া যাচ্ছে না। তবে, হাসপাতাল না থাকার পরও সেখানে চিকিৎসক পদায়ন হওয়ার বিষয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন তিনি। 

এদিকে, হাসপাতালগুলো নির্মিত না হওয়ায় ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জের মানুষকে চিকিৎসার জন্য যেতে হয় নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা হাসপাতাল ও নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে। ফলে ভোগান্তি কমেনি রোগিদের। 


 

এই বিভাগের আরো খবর

কক্সবাজার ও জামালপুর লকডাউন

অনলাইন ডেস্ক: দেশে করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত
খুনি মাজেদের প্রাণভিক্ষার আবেদন

অনলাইন ডেস্ক: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু...

বিস্তারিত
বিভিন্ন স্থানে খাদ্য সামগ্রী বিতরণে অনিয়ম

ডেস্ক প্রতিবেদন: করোনা ভাইরাসে সৃষ্ট...

বিস্তারিত
পটিয়ায় গাড়ি চলাচলে কড়াকড়ি

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা: করোনা সংক্রমণ...

বিস্তারিত
নারায়ণগঞ্জ ও রাজধানীর ৫২ এলাকা লকডাউন

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *