ভালোবাসার সপ্তাহে ১৩ ফেব্রুয়ারি ‘হাগ ডে’

প্রকাশিত: ১০:৫৮, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপডেট: ১০:৫৮, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নাসির উদ্দিন: বিশ্বজুড়ে চলছে ভালোবাসা সপ্তাহ। ভ্যালেন্টাইনের সপ্তাহটি ফেব্রুয়ারি রোজ ডে দিয়ে শুরু হয়েছে। ফেব্রুয়ারি প্রোপোজ ডে, ফেব্রুয়ারি চকলেট ডে, ১০ ফেব্রুয়ারি টেডি ডে, ১১ ফেব্রুয়ারি প্রমিজ ডে, ১২ ফেব্রুয়ারি কিস ডে পেরিয়ে আজ ১৩ ফেব্রুয়ারি হলোহাগ ডে ভালোবাসা সপ্তাহের আলিঙ্গনের দিন প্রিয়জনকে একটু আলিঙ্গন করে মুহূর্তেই মন ভালো করে দিতে পারেন।

১৩ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব হাগ ডে হিসেবে পালিত হয়। ভ্যালেন্টাইন' সপ্তাহের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দিন হাগ ডে। ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইন দিবসের আগে যেসব দিবস পালিত হয়ে থাকে, তার মধ্যে অন্যতম আজকের দিনটি অর্থাৎ ১৩ ফেব্রুয়ারির হাগ ডে। আপনার ছোঁয়াই বুঝিয়ে দেবে প্রেমের প্রতি আপনি কতটা বিশ্বস্ত। প্রিয়জনকে আপনার জড়ানোর কায়দাই বুঝিয়ে দেবে আপনি তাকে কতটা ভালোবাসেন এবং তাকে আপনি সমস্ত বিপদের থেকে কতটা আগলে আগলে রাখেন।

প্রিয় মানুষটির সঙ্গ আমরা কে না চাই? শৈশবে মা-বাবার আদর থেকে শুরু করে, বন্ধুর হাত ধরে বন্ধুত্ব এবং সবশেষে জীবন সঙ্গীটির হাত ধরা। আচ্ছা, যখন আমাদের মন খারাপ করে, কারো সঙ্গ পেতে ইচ্ছা করে তখন নিশ্চয়ই আমরা চাই প্রিয় মানুষটিকে জড়িয়ে ধরতে, একাকিত্ব ভাগাভাগি করতে। আপনার প্রিয় মানুষটির একাকিত্বটা সরিয়ে দিতে আপনি না হয় তাকে একটি আলিঙ্গন করলেন। অধিক ব্যস্ততায় মা-বাবাকে সময় দিতে পারছেন না, ফেব্রুয়ারির এই দিনটিতে শৈশবের স্মৃতিটা ফিরিয়ে আনুন আলিঙ্গনবদ্ধ হয়ে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, যে দিনে অন্তত চার থেকে বারো বার কাউকে আলিঙ্গন করা জরুরি। তা সম্ভব না হলে ভালোবাসার মানুষকে দিনে অন্তত ২০ সেকেন্ড জড়িয়ে থাকুন। জমিয়ে করুন এই আলিঙ্গন দিবসের উদযাপন।

আসুন জেনে নিই কী সেই বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা-

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় প্রকাশ হয়েছে, বয়সের সঙ্গে একাকীত্ব বাড়তে থাকে, যা স্ট্রেস বাড়িয়ে তোলে। আপনার একটা ছোট্ট হাগই আপনার প্রিয় মানুষটার একাকীত্ব কমিয়ে দিয়ে আপনাদের সম্পর্ককে আরও দৃঢ় করে তুলবে।

যখন আমরা কারোকে জড়িয়ে ধরি তখন স্ট্রেস হরমোন কর্টিসোল নিঃসারিত হয়। এই কর্টিসোল হরমোন আমাদের জীবনে স্ট্রেস এবং মানসিক অস্থিরতা বাড়িয়ে তোলে। তাই যত বেশি আমরা জড়িয়ে ধরি তত কমে যায় কর্টিসোলের পরিমান। মানসিক ভাবে শান্ত থাকতে সাহায্য করে ছোট্ট হাগ।

আমরা যখন কখনও কারোকে জড়িয়ে ধরি তখন অক্সিটসিন হরমোন নিঃসারণ হয়। এই হরমোন আমাদেরকে মানসিক ভাবে সুখি অনুভব করতে সাহায্য করে। এই হরমোন সামাজিক বন্ধন বাড়াতেও সাহায্য করে। কেন না নিউরো-পেপটাইড অক্সিটক্সিন হরমোন আমাদের মধ্যে সততা, অনুরাগ বাড়িয়ে তোলে। প্রেমের সম্পর্ককে মজবুত করতে যা একান্তই প্রয়োজন।

হাগ করা বা জড়ানো আপনার মনই নয় শরীরকেও ভাল রাখতে সাহায্য করে। যখন কেউ আপনাকে জড়ায় তখন ত্বকের মধ্যে থাকা পাসিনিয়ান কর্পাসেলস নামে প্রেসার রিসেপটর মস্তিষ্কে সংকেত পাঠিয়ে রক্তচাপ কমিয়ে দেয়। যা হার্টের ভাল থাকার পক্ষে খুবই জরুরি।

হার্ট ভাল রাখতে জড়ানোর থেকে ভাল ওষুধ আর কিছু হতে পারে না। প্রিয়জনের ছোট্ট ছোঁয়া প্রতি মিনিটে হার্টের গতিবেগ বাড়িয়ে তোলে অন্তত ১০ বিট।

প্রিয়জনের জড়ানো আপনাকে মানসিক ভাবে ভাল রাখে। আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তুলে অকারণে ভয় পাওয়া কমিয়ে দেয়। প্রিয় মানুষদের জীবনে আপনার যে গুরুত্বপূর্ণ অস্তিত্ব আছে তা বোঝায়।

তাই হাগ ডে উপলক্ষে আজকের দিন তো বটেই, পাশাপাশি প্রতিদিনই প্রিয়জনকে রাখুন ভালোবাসার আলিঙ্গনে।

এই বিভাগের আরো খবর

ঘরে বসেই তৈরি করুন মজাদার ফ্রুট পুডিং

অনলাইন ডেস্ক: হালকা নাস্তার জন্য...

বিস্তারিত
সারাদিন সতেজ থাকতে গোসলে যা করবেন

অনলাইন ডেস্ক: শীত যেতে না যেতেই...

বিস্তারিত
যেভাবে বানাবেন মজাদার ‘ফিশ কেক’

অনলাইন ডেস্ক: ফিশ কেক খুবই সুস্বাদু...

বিস্তারিত
তারুণ্য ধরে রাখে ডাবের পানি

অনলাইন ডেস্ক: ডাবের পানি আমাদের...

বিস্তারিত
ভেজা চুলে ঘুমালে যে সমস্যা হয় 

অনলাইন ডেস্ক: ছোটখাটো কিছু ভুলের...

বিস্তারিত
চিকেন চাপলি কাবাব বানাবেন কিভাবে

অনলাইন ডেস্ক: সেই মুঘল আমল থেকেই...

বিস্তারিত
রাশিয়ান সালাদ বানাবেন যেভাবে

অনলাইন ডেস্ক: একই রকমের বোরিং সালাদ...

বিস্তারিত
চিকেন পিক্কাটা

অনলাইন ডেস্ক: চিকেন পিক্কাটা নামটা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *