হেয়ার কালার হতে পারে ক্যান্সারের কারণ!

প্রকাশিত: ১১:১২, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপডেট: ১১:১২, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: বাহারি রংয়ে চুল রাঙ্গানো বর্তমান জেনারেশনের কাছে ফ্যাশন ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে। কেমিকেলে তৈরী এইসব কৃত্তিম রং চুলের স্বাস্থের জন্য ক্ষতিকর জেনেও গুরুত্ব দেয় না অনেকেই। তবে চুলের রং করার ফলে যে ক্যান্সারের মতো মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে তা হয়ত অনেকেরই জানান নেই।

জিনগত কারণ, পরিবেশ এবং খাদ্যাভাসের মতো অনেক করণেই ক্যান্সার হয়। তেমনি নিয়মিত চুলে রং করা ফলে ক্যান্সার হতে পারে বলে মনে করেন বিজ্ঞানীরা। তাদের মতে পার্মানেন্ট (স্থায়ী) হেয়ার কালার ব্যবহারে এই সমস্যা হওযার সম্ভাবনা বেশি। কারণ এতে প্যারাবেন, অ্যামোনিয়ার মতো ক্ষতিকারক রাসায়নিক মেশানো থাকে। যা ক্যান্সারের ঝুঁকি বহুগুণ বাড়িয়ে দেয়। টেম্পুরারি হেয়ার কালারে এই উপাদান কম থাকে বলে ঝুঁকির মাত্রা কম। তবে ক্যান্সার রোধে হেয়ার কালার থেকে দূরে থাকার কথাই বলেছেন বিজ্ঞানীরা।

ভারতের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ হেলথের একটি সম্প্রতিক গবেষণা বলছে, পারমানেন্ট হেয়ার কালার নারীদের স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে। পারমানেন্ট হেয়ার কালার নারীদের স্তন ক্যান্সারের প্রবণতা প্রায় ৯ শতাংশ বাড়িয়ে তোলে। যে সকল নারীরা প্রতি ৫ থেকে ৮ সপ্তাহ বা তার বেশি সময় পর পর পারমানেন্ট হেয়ার ডাই করান তাদের স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি ৬০ শতাংশ বেড়ে যায়। 

সাধারণত তিন রকমের হেয়ার কালার ব্যবহার করতে দেখা যায়।এগুলোর মধ্যে টেম্পুরারি হেয়ার কালার সব থেকে বেশি ব্যবহার করা হয়। এই রংগুলি বেশি দিন থাকে না। এক থেকে দু’বার শ্যাম্পু করার পরই চলে যায়।এতে রাসায়নিকের পরিমাণ কম থাকে।

যে হেয়ার কালারগুলি একটু বেশি দিন থাকে সেগুলি থেকেই প্রধানত ত্বকের ক্ষতি শুরু হয়। সাধারণত এই রং একমাসেরও বেশি দিন পর্যন্ত থেকে যায়। আর যে কালারগুলি ‘পার্মানেন্ট’ হয় সেই রংগুলি সব থেকে বেশি ক্ষতিকারক হয়।

যদিও হেযার কালার প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো দাবি করে তারা কম মাত্রায় রাসায়ানক মেশায়। তবে এর বাস্তব চিত্র ভিন্ন। রাসায়নিকের মাত্রা বেশি থাকায় শরীরে শুরু হয় বিভিন্ন রকমের সমস্যা। চুল ঝরে যাওয়া, মাথার ত্বকে অ্যাল্যার্জি, গলা ও ফুসফুসের সমস্যা, চোখের সমস্যার মতো একাধিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই গবেষকরা জানিয়েছেন, খুব বেশি রং ব্যবহার করা উচিত না। আর ব্যবহার করলেও টেম্পুরারি ব্যবহার করা উচিত। এছাড়াও প্রাকৃতিক হেয়ার কালার ব্যবহার করা উচিত। চুলে কারলার ব্যবহার করার সময় অবশ্যই  হাতে গ্লাভস পরে নিতে হবে।

এই বিভাগের আরো খবর

স্ত্রীর অভিমান ভাঙাবেন যে ভাবে

অনলাইন ডেস্ক: দাম্পত্য জীবনের শুরুতে...

বিস্তারিত
ঘরে বসেই তৈরি করুন মজাদার ফ্রুট পুডিং

অনলাইন ডেস্ক: হালকা নাস্তার জন্য...

বিস্তারিত
সারাদিন সতেজ থাকতে গোসলে যা করবেন

অনলাইন ডেস্ক: শীত যেতে না যেতেই...

বিস্তারিত
যেভাবে বানাবেন মজাদার ‘ফিশ কেক’

অনলাইন ডেস্ক: ফিশ কেক খুবই সুস্বাদু...

বিস্তারিত
তারুণ্য ধরে রাখে ডাবের পানি

অনলাইন ডেস্ক: ডাবের পানি আমাদের...

বিস্তারিত
ভেজা চুলে ঘুমালে যে সমস্যা হয় 

অনলাইন ডেস্ক: ছোটখাটো কিছু ভুলের...

বিস্তারিত
চিকেন চাপলি কাবাব বানাবেন কিভাবে

অনলাইন ডেস্ক: সেই মুঘল আমল থেকেই...

বিস্তারিত
রাশিয়ান সালাদ বানাবেন যেভাবে

অনলাইন ডেস্ক: একই রকমের বোরিং সালাদ...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *