আবর্জনার গন্ধে অতিষ্ট জলঢাকার মানুষ

প্রকাশিত: ১১:০০, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপডেট: ১২:৪২, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নীলফামারী সংবাদদাতা: নানা অব্যবস্থাপনায় চলছে নীলফামারীর জলঢাকা পৌরসভার কার্যক্রম। শহরজুড়েই ছড়িয়ে ছিটিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে আবর্জনার ভাগাড়। পৌর এলাকায় নেই ভালো পয়নিষ্কাশন ব্যবস্থা। যে টুকু আছে তাও পরিস্কার করে ময়লা রাখা হচ্ছে সড়কের পাশে। আর এসব ভাগাড়ের দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ পৌরবাসী। শহরজুড়ে ভাঙ্গা রাস্তা। নাগরিক বিভিন্ন সেবা পেতেও রয়েছে ভোগান্তির অভিযোগ।

শহর জুঁড়ে ভাঙ্গাচোরা রাস্তা আর তার পাশেই এমন ময়লার ভাগাড়। এমন দৃশ্য নিত্য দুর্ভোগে ফেলে নীলফামারীর জলঢাকা পৌরসভার বাসিন্দাদের। ২০০১ সালে পৌরসভা হওয়ার পর ২০০৮ সালে দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নিত হয়। তবে এক যুগ পার হলেও নামমাত্র নাগরিক সেবাও মেলেনা এই পৌরাবাসীর।

শহরের জিরো পয়েন্ট থেকে উপজেলা পরিষদে যাওয়ার পথেই ময়লার ভাগাড়। ফাঁকা জায়গায় রাখার কারণে এসব ময়লা ছড়িয়ে বাড়াচ্ছে দুর্ভোগ। আবার ড্রেনের ময়লা পরিষ্কারের পর রাখা হয় রাস্তার পাশেই। এতে আবর্জনার তীব্র গন্ধে অতিষ্ঠ নগরবাসী।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, মেয়র নগর উন্নয়নে কোন কাজ করেন না। এমনকি ট্রেড লাইসেন্স, জন্ম বা মৃত্যু সনদসহ যে কোন সেবা নিতে বার বার ধরণা দিয়েও দেখা মেলেনা মেয়রের।

পৌরসভার এসব অব্যবস্থাপনায় বি²ুব্ধ জনপ্রতিনিধিরাও। মেয়রের উদাসিনতা ও স্বেচ্ছাচারিতার কারণে পৌরসভার উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে বলে জানান তারা।

পৌর মেয়র দাবি জানান, বিরোধীদলীয় রাজনীতি করায় তাঁকে কোনঠাসা করে রাখা হয়েছে। তিনি উপজেলা বিএনপির সভাপতিও।

তবে এসব হিসেব মেলাতে রাজি নয় পৌরবাসী। বরং প্রাপ্য নাগরিক সেবার নিশ্চয়তা চান তারা।
 

এই বিভাগের আরো খবর

রংপুরে খোলা জায়গায় বর্জ্য, অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

রংপুর সংবাদদাতা: আবারো খোলা জায়গায়...

বিস্তারিত
ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা: ঢাকা-টাঙ্গাইল...

বিস্তারিত
রংপুর সিটির বর্ধিত এলাকার সড়ক ও সেতুর বেহাল দশা

রংপুর সংবাদদাতা: দীর্ঘদিন সংস্কার না...

বিস্তারিত
মাস্কের দাম বেশি নিলে যেখানে অভিযোগ জানাবেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: চীন থেকে শুরু হয়ে...

বিস্তারিত
রেলসেবা পেতে ফেনীবাসীর ভোগান্তি

ফেনী সংবাদদাতা: রেলের কাঙ্খিত সেবা...

বিস্তারিত
দখল আর দূষণে অস্তিত্ব সংকটে কর্ণপাড়া খাল

সাভার সংবাদদাতা: দুষণ আর দখলের কবলে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *