দুই মাসে বিতরণ দেড় হাজার ই-পাসপোর্ট

প্রকাশিত: ০৯:২২, ০৪ মার্চ ২০২০

আপডেট: ১১:৩০, ০৪ মার্চ ২০২০

মাবুদ আজমী: উদ্বোধনের পর দুই মাসে মাত্র দেড় হাজার ই-পাসপোর্ট বিতরণ করতে পেরেছে পাসপোর্ট অধিদপ্তর। আবেদন জমা পড়েছে ত্রিশ হাজারেরও বেশি। অনলাইনে আবেদনপত্র পূরণ থেকে শুরু করে পাসপোর্ট হাতে পাওয়া পর্যন্ত কমপক্ষে তিন মাস সময় লাগছে। জরুরি ভিত্তিতে ই-পাসপোর্ট পাওয়ার আপাতত কোন সুযোগ নেই। নতুন পদ্ধতি, যন্ত্রের স্বল্পতা ও দক্ষ জনবলের অভাবে সময় বেশি লাগছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্ট পেতে আবেদনকারীর ছবি তোলা, দশ আঙুলের ছাপ ও চোখের আইরিশ দেয়ার কাজগুলো যন্ত্রে করতে হয়। সেখানে পাঁচ থেকে ১০ মিনিট সময় লাগার কথা। কিন্তু বেশিরভাগ আবেদনকারীর ক্ষেত্রেই ৩০ মিনিট থেকে এক ঘন্টা পর্যন্ত লাগছে।

এ পর্যন্ত আসতেও সময় লাগছে দুই মাসের বেশি। অনলাইনে আবেদনপত্র পূরণ ও জমা দেয়ার পর ছবি তোলার তারিখ ও সময় দেয়া হয়। সেই সময় অনুযায়ী পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে ছবি তোলা, আঙুলের ছাপ ও চোখের আইরিশ দিতে হয়। তবে এসব কাজ সহজেই হচ্ছে না।

পাসপোর্ট অফিস ঘুরে দেখা সেবাগ্রহীতারা সহজে পাচ্ছে না আধুনিক পদ্ধতির এই পাসপোর্ট। আর সাধারণ, জরুরী ও অতি জরুরী ভিত্তিতে পাসপোর্ট দেয়ার কথা থাকলেও ই-পাসপোর্ট জরুরি ভিত্তিতে পাওয়া যাচ্ছে না।

পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাকিল আহমেদ জানালেন, নতুন পদ্ধতি হওয়ায় কিছুটা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তাদের। সক্ষমতা বাড়িয়ে সহজে ই পাসপোর্ট দিতে কাজ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।
ঢাকার আগারগাওসহ তিনটি আঞ্চলিক অফিসে প্রতিদিন ই পাসপোর্টের ৫শ’র মত আবেদন গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানান মহাপরিচালক।

এই বিভাগের আরো খবর

এনআইডি সেবা চালু রাখার চিন্তা ইসি’র

কাজী ফরিদ: কমবেশি ২০টি নাগরিক সেবা...

বিস্তারিত
পোষা প্রাণীর প্রতি নিষ্ঠুর আচরণ নয়

শেখ হারুনঃ করোনা পরিস্থিতিতে চলমান...

বিস্তারিত
দুঃসময়ে মানুষের পাশে নেই রাজনৈতিক দলগুলো

জয়দেব দাশ: করোনা পরিস্থিতির শিকার...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *