দেশের প্রথম গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণের প্রকল্প অনুমোদন

প্রকাশিত: ০৪:৩১, ১০ মার্চ ২০২০

আপডেট: ০৯:০০, ১০ মার্চ ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: কক্সবাজারের মাতারবাড়ীতে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ প্রকল্পটির অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এর মধ্য দিয়ে গভীর সমুদ্র বন্দর যুগে প্রবেশ করল বাংলাদেশ। আজ (মঙ্গলবার) সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের এনইসি সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এই অনুমোদন দেয়া হয়।

এ সময় বৈঠকে ২৪ হাজার ১শ’ ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৯টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সভা শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে বিস্তারিত তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, চলতি অর্থ বছরের সাত মাসে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি-এডিপির বাস্তবায়ন হয়েছে ৩৭ শতাংশ যা, গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২ শতাংশ কম।

মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাস নিয়ে আজ তেমন কিছু বলেননি। তবে সকলকে সাবধান থাকতে বলেছেন। বেশি করে ফল খেতে বলেছেন। মন্ত্রী বলেন, মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর কোনো আবেগের জায়গা নয়। এটা প্রয়াজন। এ প্রকল্পের কিছু ব্যয় বেশি ধরা আছে। এক্ষেত্রে সব ব্যয় সরলীকরণ করলে হবে না। এর যথেষ্ট কারণও আছে। যেমন পায়রা ও মাতারবাড়ির জমির কনফিগারেশন এক নয়। তাছাড়া মাতারবাড়ীর সড়ক কোনো সাধারণ সড়ক হবে না। এগুলো মূলত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের মতো হবে।’

প্রকল্পটিকে স্বপ্নের প্রকল্প হিসেবে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়বে। পায়রা নদীর ওপর সেতু নির্মাণ প্রকল্প প্রসঙ্গে তিনি জানান, চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র শীর্ষেন্দুর দেওয়া চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে এই সেতুটি দ্রুত হয়েছে। সেজন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই। তবে এমনিতেই প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সব নদীতে যেন সেতু হয়। সে হিসেবে পায়রার নদীর ওপরও সেতু হতো। কিন্তু শীর্ষেন্দুর চিঠি পাওয়ায় সেটি ত্বরান্বিত হয়েছে।’ 
মন্ত্রী আরও জানান, একনেকে কৃষিমন্ত্রী জানিয়েছেন আপেল আমদানি কমে গেছে। কেন না মানুষ এখন দেশি বড়ই খাচ্ছে বেশি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সারাবিশ্ব করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা বিশ্বের বাইরে না। সুতরাং আমাদের এখানেও প্রভাব পড়বে। তবে কতটুকু প্রভাব পড়বে সেটি এখনো বলা যাচ্ছে না। কিন্তু ইতোমধ্যেই চীন থেকে অনেক ব্যবসা দেশে আসতে শুরু করেছে। এটি পজেটিভ দিক। এছাড়া অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, মাতারবাড়ী বন্দর নির্মাণ কাজ দ্রুত শুরু করতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়া একনেকে অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হলো- সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের দুটি প্রকল্প যথাক্রমে ‘লেবুখালী-রামপুর-মির্জাগঞ্জ সংযোগ সড়ক নির্মাণ’ প্রকল্প ও ‘কচুয়া-বেতাগী-পটুয়াখালী-লোহালিয়া-কালাইয়া সড়কের ১৭তম কিলোমিটারে পায়রা নদীর ওপর সেতু নির্মাণ’ প্রকল্প; গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দুটি প্রকল্প যথাক্রমে ‘স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্সের (এসএসএফ) ফায়ারিং রেঞ্জের আধুনিকায়ন’ প্রকল্প ও ‘জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা কার্যালয়ের ২০তলা ভিতবিশিষ্ট দুটি বেজমেন্টসহ ১০ তলা (সংশোধিত ২০ তলা) প্রধান কার্যালয় নির্মাণকাজ (দ্বিতীয় সংশোধন)’ প্রকল্প, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের ‘মাতারবাড়ী পোর্ট ডেভেলপমেন্ট’ প্রকল্প, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে মৎস্যসম্পদ উন্নয়ন’ প্রকল্প, কৃষি মন্ত্রণালয়ের ‘জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলাধীন পাকেরদহ ও বালিজুরি এবং বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলাধীন জামথল এলাকা যমুনা নদীর ভাঙন হতে রক্ষা’ প্রকল্প এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের ‘ঢাকা স্যানিটেশন ইনম্প্রুভমেন্ট’ প্রকল্প।

এই বিভাগের আরো খবর

১৩ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন ডিএসইতে 

অনলাইন ডেস্ক : টানা ৬৬দিন বন্ধ থাকার...

বিস্তারিত
এ মাস থেকেই শ্রমিকদের ছাঁটাই শুরু: বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি মাস (জুন) থেকেই...

বিস্তারিত
সব উপজেলায় টিসিবির পণ্য বিক্রয়ের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী এক সপ্তাহের...

বিস্তারিত
দেশের ৭৪ ভাগ মানুষের উপার্জন কমেছে

মেহের মণি: করোনা সংকটে উপার্জন কমেছে...

বিস্তারিত
বিশিষ্ট শিল্পপতি আব্দুল মোনেম আর নেই

নিজস্ব সংবাদদাতা: বিশিষ্ট শিল্পপতি ও...

বিস্তারিত
বাংলাদেশকে ৭৩ কোটি ডলার দেবে আইএফএম

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাস...

বিস্তারিত
রোববার থেকে পূর্ণ কর্মদিবস ব্যাংক লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *