ঝিনাইদহে ক্যাপসিকামের বাণিজ্যিক আবাদ, মিলছে সাড়া

প্রকাশিত: ০৫:৩২, ১০ মার্চ ২০২০

আপডেট: ১০:১৯, ১০ মার্চ ২০২০

ঝিনাইদহ সংবাদাদাতা: ঝিনাইদহে বাণিজ্যিকভাবে বিদেশি সবজি ক্যাপসিকামের আবাদ শুরু করেছেন চাষীরা। প্রথমবারের মতো চাষ করেই স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বেশ সাড়া পাচ্ছেন তারা। আশা করছেন ভালো লাভের। এদিকে, ক্যাপসিকামের চাষ বাড়াতে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ। 

ঝিনাইদহের মহেশপুরের সীমান্তবর্তী কুসুমপুর এলাকায় প্রথমবারের মতো বাণিজ্যিকভাবে বিদেশী সবজি ক্যাপসিকাম চাষ শুরু হয়েছে। ফলনও হচ্ছে ভালো। এখানে ক্যাপসিকাম আবাদের অন্যতম উদ্যোক্তা স্থানীয় চাষী আলমগীর কবীর। গত বছরের সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে বীজ বপনের পর নভেম্বর মাসে চারা রোপন করা হয়। গেলো জানুয়ারিতেই ক্ষেত থেকে শুরু হয় ক্যাপসিকাম সংগ্রহ।

আরেক চাষী সুলতান মাহমুদ জানালেন, কৃষি বিভাগের সহযোগিতায় দক্ষিণ কোরিয়া থেকে বীজ এনে তিনি ১৫ হাজার চারা রোপন করেছিলেন। ফলন ভালো হওয়ার পাশাপাশি পাইকারদের কাছে ভালো দামে বিক্রির প্রস্তাবও পেয়েছেন। 

ক্যাপসিকাম ক্ষেতে এফিডজ্যাসিড জাতীয় পোকার আক্রমণ হয়। এদের দমন করতে ব্যবহার করা হচ্ছে বিষমুক্ত ইয়োলো ও ব্লু ট্র্যাপ। পোকার আক্রমণ ঠেকাতে পারলে ফলন অনেক ভালো হবে বলে জানালেন স্থানীয় উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রবিউল কবির। 

কৃষি বিভাগ জানিয়েছে, আমদানি করা ক্যাপসিকামের তুলনায় এখানকার উৎপাদিত ক্যাপসিকামের গুণগত মান ভালো। এর চাষ বাড়াতে পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি নানাভাবে উৎসাহিত করা হচ্ছে। 

এবছর মহেশপুর পৌর এলাকা ও উপজেলা সদরে ক্যাপসিকামের আবাদ হয়েছে। যা আগামীতে আরো বাড়বে বলে জানালো কৃষি বিভাগ।  

এই বিভাগের আরো খবর

আরও ১১ জনপ্রতিনিধি বরখাস্ত

বরগুনা সংবাদদাতা: কর্মস্থলে...

বিস্তারিত
বেশি ভাড়া নেয়ায় শ্যামলী পরিবহণকে অর্থদন্ড

বগুড়া সংবাদদাতা: ৬০ ভাগ ভাড়া বৃদ্ধির...

বিস্তারিত
মৌসুমি ফল পরিবহন করবে ডাকঘর

অনলাইন ডেস্ক: ডাকঘরের বিশাল পরিবহন...

বিস্তারিত
করোনায় বগুড়ায় পোল্ট্রি শিল্পে ধস

বগুড়া সংবাদদাতা: করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *