ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ৩ পৌষ ১৪২৪, ২৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
মহান বিজয় দিবস আজ  মহান বিজয় দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বিজয় দিবসে বর্ণিল সাজে রাজধানী আতশবাজি ও ফানুস উড়িয়ে ঢাবিতে বিজয় উদযাপন মুক্তিযুদ্ধের আদর্শিক লড়াই শেষ হয়নি আজও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ছায়েদুল হকের ইন্তেকাল মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া বিজয় দিবসে স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী কংগ্রেসের সভাপতি হিসেবে রাহুল গান্ধীর অভিষেক ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ ফুটবলে রাতে মাঠে নামছে রিয়াল মাদ্রিদ মানুষের অন্তরে মহিউদ্দিন চৌধুরী জননেতা হিসেবেই বেঁচে থাকবেন স্বপ্নের ফেরিওয়ালা মহিউদ্দিন চৌধুরী মহান বিজয় দিবস উদযাপনে দেশজুড়ে নানা আয়োজন  সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বারবার হোচট খেয়েছে বাংলাদেশ নাটোরে চালু হয়নি কৃষকদের ৫টি শস্য মার্কেট কুমিল্লায় বাস চাপায় নিহত দুই রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শেষ মুহূর্তে জমজমাট রাজধানীর বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ টি-টেন ক্রিকেট লিগে কেরেলা কিংসের জয় হাসপাতালে জনবল-শয্যার অভাবে চিকিৎসা বঞ্চিত ঝিনাদহের নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশুরা

পাহাড় কাটার বিরুদ্ধে দ্রুত ও জোরালো ব্যবস্থা নেয়া হবে: মঞ্জু

প্রকাশিত: ০৪:৩১ , ১৯ জুন ২০১৭ আপডেট: ০৪:৩১ , ১৯ জুন ২০১৭

সংসদ প্রতিবেদক: পাহাড় কাটার বিরুদ্ধে দ্রুত ও জোরালো ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ ও বন মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। সে-লক্ষ্যে নিয়মিত মামলা ও বলবৎকরণ কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে।

আজ সোমবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।  

ফরিদুল হক খানের লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো জানান, জলাভূমি ভরাট করার অপরাধে চলতি বছরের এপ্রিল মাস পর্যন্ত ৩ কোটি ৮ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় করা হয়েছে। এ ছাড়া শিল্প বর্জ্য থেকে দূষণ কমানোর লক্ষ্যে ২০৩০ সালের মধ্যে তরল বর্জ্য নির্গমনকারী সকল শিল্পপ্রতিষ্ঠানে ‘জিরো টলারেন্স’ পলিসি বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

একই প্রশ্নের জবাবে পরিবেশ মন্ত্রী জানান, চলতি বছরের এপ্রিল পর্যন্ত ২,৮৯১টি প্রতিষ্ঠান থেকে পরিবেশ দূষণের জন্য ২৩৪ কোটি ৮ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য করা হয়েছে এবং তার মধ্যে আদায় করা হয়েছে ১৪৭ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। এ সময়ের মধ্যে ১,৫৫৩টি শিল্পপ্রতিষ্ঠানে ইটিপি স্থাপিত হয়েছে।  

সরকারি দলের সদস্য এ. কে. এম. রহমতুল্লাহ’র এক প্রশ্নের জবাবে মঞ্জু জানান, শিল্পদূষণ থেকে পানি যাতে দূষিত না হয়, তার জন্য কেন্দ্রীয় বর্জ্য পরিশোধনাগার স্থাপন করে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।  

তিনি আরো জানান, বুড়িগঙ্গা, তুরাগ, বালু ও শীতলক্ষ্যা নদীকে পরিবেশগত সঙ্কটাপন্ন এলাকা (ইসিএ) হিসেবে ঘোষণা করে নদীগুলোর ব্যবস্থাপনার জন্য কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। আর হাজারীবাগ ট্যানারি শিল্প স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়েছে। এছাড়া জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফাণ্ড হতে সারা দেশে বনায়নের লক্ষ্যে ইতিমধ্যে ১৪৪ কোটি ৩৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ১৪টি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

বিজয় দিবসে স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ১০ টাকা মূল্যের একটি স্মারক ডাকটিকিট ও একটি উদ্বোধনী খাম এবং পাঁচ টাকা দামের একটি ডাটাকার্ড...

রাজধানীতে পেঁয়াজ ও চালের দাম উর্ধ্বমুখী, কমছে সবজির দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর বাজারে একমাসে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ। প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাকায়। অন্যদিকে, নতুন চাল আমন এলেও দাম...

পুরো দক্ষিণ এশিয়ার জনগণই হৃদরোগের ঝুঁকির মধ্যে: রাষ্ট্রপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক: শুধু বাংলাদেশ নয়, পুরো দক্ষিণ এশিয়ার জনগণই হৃদরোগের ঝুঁকির মধ্যে বসবাস করছে বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ...

রংপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীকে সরিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন থেকে ধানের শীষের প্রার্থীকে সরিয়ে দিতে সরকার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is