ছয় দফার লক্ষ্য শোষণ ও অবিচারের অবসান- বঙ্গবন্ধু

প্রকাশিত: ১০:১৭, ০৯ এপ্রিল ২০২০

আপডেট: ১২:০০, ০৯ এপ্রিল ২০২০

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর বছর ২০২০। তাঁর শততম জন্মবার্ষিকীর দিন, ১৭ই মার্চ থেকে শুরু হয়েছে মুজিববর্ষ উদযাপন। চলবে ২০২১ সালের ২৬শে মার্চ পর্যন্ত। স্বাধীন বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু একাত্মা। তিনিই একাত্তরের ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। তাঁর ডাকেই মানুষ স্বাধীনতার জন্য সশস্ত্র যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। বাংলাদেশের স্বাধীনতার দ্বারে পৌঁছানোর আগের বছরটি কেমন কেটেছিল বঙ্গবন্ধুর। সেই উত্তাল আন্দোলনে শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক দিনগুলো নিয়ে মুজিববর্ষ জুড়ে বৈশাখী সংবাদের বিশেষ ধারাবাহিক আয়োজন- যাঁর ডাকে বাংলাদেশ।

১৯৭০ সালের ৯ই এপ্রিল খুলনার মোড়লগঞ্জে এক জনসভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ মুজিবুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, “এক শ্রেণীর ভাড়াটিয়া আলেম গ্রামে গ্রামে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচার চালাইতেছে। বাংলার জনগণের স্বায়ত্তশাসন ও অন্যান্য দাবী-দাওয়া বানচালের উদ্দেশ্যে ইসলামের নামে এই প্রদেশের সরলপ্রাণ মুসলমানদের বিভ্রান্ত করার উদ্দেশ্যে শোষক ও কায়েমী স্বার্থবাদীরা এই ধর্মব্যবসায়ীদের লেলাইয়া দিয়াছে।” (সূত্রঃ ১০ এপ্রিল, ১৯৭০; দৈনিক ইত্তেফাক)

তিনি বলেন, “ছয় দফার লক্ষ্য হইতেছে শোষণ ও অবিচারের অবসান। শোষণ ও অবিচার ইসলামেও নিষিদ্ধ। ছয় দফার ভিত্তিতে স্বায়ত্তশাসন অর্জিত হইলে বাংলাকে আগের মত আর শোষণ ও লুঠ করা যাইবে না দেখিয়া শোষক ও কায়েমী স্বার্থবাদীরা নিজেদের কায়েমী স্বার্থ রক্ষার চেষ্টা হিসাবে মিথ্যা প্রচারের জন্য এই সব ভাড়াটিয়া লোক নিয়োগ করিয়াছে।” (সূত্রঃ ১০ এপ্রিল, ১৯৭০; দৈনিক ইত্তেফাক)

এদিন টঙ্গীতে আওয়ামী লীগের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে গেলে শ্রমিক লীগের নেতাদের ওপর হামলা চালায় দুস্কৃতিকারীরা।

এই বিভাগের আরো খবর

৬ দফাকে চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছান বঙ্গবন্ধু

গোলাম মোর্শেদ: সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের...

বিস্তারিত
‘৬-দফাই জাতির মুক্তির সনদ’

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *