ঢাকা, রবিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৭, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ১ সফর ১৪৩৯
শিরোনামঃ
ঢাকায় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাতে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাত রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থানকে গুতেরেসের সমর্থন গত কদিনে বাংলাদেশে ঢুকেছে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা ১১ সাক্ষীকে জেরার জন্য খালেদার আবেদন হাই কোর্টে নিষ্পত্তি নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া ১৪ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা শিশু অপুষ্টিতে মারা যেতে পারে নিরাপদ সড়ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে সবাই আইন মেনে চলুন টস জিতে ব্যাটিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা আবহাওয়ার উন্নতি: দেশের বিভিন্ন রুটে নৌ চলাচল স্বাভাবিক নির্বাচন নিয়ে সরকার নীল নকশা করছে: রিজভী ২৫টি নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থার সাথে বৈঠকে বসেছে ইসি ফাইনালে আজ মুখোমুখি হচ্ছে ভারত ও মালয়েশিয়া স্পেনের কেন্দ্রীয় শাসন না মানার ঘোষণা কাতালান প্রেসিডেন্টের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখুন: জয় ইপিএল-এ জয় পেয়েছে চেলসি ও ম্যানসিটি বেড়িবাঁধ ভেঙে বিভিন্ন জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাহত ফেরি চলাচল টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা টানা বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন বন্দরের কার্যক্রমে স্থবিরতা মালয়েশিয়ায় ভূমিধসে তিন বাংলাদেশীসহ ৪ শ্রমিকের মৃত্যু কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে দিলো স্পেন

চট্টগ্রামের কুইন মেরী স্কুল ও কলেজের প্রতিষ্ঠাতা উধাও

প্রকাশিত: ০৫:৫১ , ২৩ জুন ২০১৭ আপডেট: ০৫:৫১ , ২৩ জুন ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: ছয় মাসের বাড়ি ভাড়া আর শিক্ষকদের বেতন ভাতা না দিয়ে উধাও হয়ে গেছেন চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ। কুইন মেরী স্কুল অ্যান্ড কলেজ নামের ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি চলছিল সরকারি কোন অনুমোদন ছাড়াই। সকল কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থী-অভিভাবকরাও রয়েছেন অনিশ্চয়তায়। অধ্যক্ষের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা  করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

চট্টগ্রাম মহানগরীর দুই নম্বর গেইট এলাকায় অবস্থিত ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-  কুইন মেরী স্কুল অ্যান্ড কলেজ। প্রায় তিন বছর আগে স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেন মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন। তিনি নিজেই এর অধ্যক্ষ। শুরু থেকে জোড়াতালি দিয়ে চললেও এ বছরের জানুয়ারী থেকে এখন পর্যন্ত শিক্ষক ও স্কুল ঘরের ভাড়া না দিয়েই লাপাত্তা হয়ে যান এই অধ্যক্ষ।

বেতন না পাওয়ায় স্কুলের সব কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছেন শিক্ষকরা। বাড়ির কেয়ারটেকার জানান, প্রতিষ্ঠানটির মালিক ছয় মাস ভাড়া দেননা। এদিকে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনিশ্চয়তায় রয়েছেন অর্ধশতাধিক ছাত্র-ছাত্রী ও তাদের অভিভাবক।

অভিভাবকদের একজন তাঁর উদ্বেগের কথা জানান এভাবে,‘বছরের মাঝামাঝি যদি স্কুল পরিবর্তন করতে হয়, তাহলে কোথায় যেতে পারি।’ অন্য একজন অভিভাবক বলেন,‘ছাত্রদের শিক্ষা নষ্ট হচ্ছে। আমরা চাই এই পরিস্থিতির জন্য দায়ীদের চিহ্নিত করে দ্রুত ব্যবস্থা নিবে প্রশাসন ।’

স্কুল ভবনটির কেয়ারটেকার জানান, ‘ঘর ভাড়া, বিদ্যুৎ বিল ও গ্যাস বিল বাকি আছে। ওরা জানুয়ারি থেকে এখানে আর আসে না।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কোন ধরনের অনুমোদন ছাড়াই চলছিল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক কাজী নাজিমুল ইসলাম বলেন, এই নামের কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদনপ্রাপ্ত কিংবা রেজিষ্ট্রেশনকৃত নয়।’


এ ধরনের ভুঁইফোড় প্রতিষ্ঠানের প্রতারণা থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান জানান তিনি।

এই সম্পর্কিত আরো খবর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধীনে থাকা ৭ কলেজের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধীনে থাকা রাজধানীর সাত কলেজে অনার্স ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ১৬ অক্টোবর থেকে ১৪...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is