অভিনেত্রী আজমেরি জামান রেশমার মৃত্যু

প্রকাশিত: ১১:৫২, ২১ মে ২০২০

আপডেট: ১১:৫২, ২১ মে ২০২০

বিনােদন ডেস্ক: অভিনেত্রী আজমেরি জামান রেশমা আর নেই। সাদাকালো যুগের অভিনেত্রী আজমেরি জামান রেশমা অনেক দিন লোকচক্ষুর আড়ালে ছিলেন। মঞ্চ, টেলিভিশন, চলচ্চিত্র কিংবা এ সংশ্লিষ্ট কোনো অনুষ্ঠানেও দেখা যায়নি তাকে। বুধবার দুপুরে রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালে মারা গেছেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৮২। দীর্ঘদিন লোকচক্ষুর অন্তরালে ছিলেন তিনি। আজমেরি জামানের পুত্রবধূ অভিনেত্রী ফারহানা মিঠু ও তার ছেলে রাহবার খান মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। 

১৯৬০ সালে রেশমা রেডিওতে ভয়েস আর্টিস্ট, উপস্থাপক ও সংবাদ পাঠক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। একই দশকে ‘জি না ভি মুশকিল’ ছবির মধ্য দিয়ে রূপালি জগতে পা রাখেন। তার উল্লেখযোগ্য বাংলা ও উর্দু ছবির মধ্যে রয়েছে ‘ভাওয়াল সন্ন্যাসী’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘নয়ন তারা’, ‘ইন্ধন’, ‘চাঁদ আর চাঁদনি’, ‘সূর্য ওঠার আগে’, ‘শেষ উত্তর’ প্রভৃতি। টিভিতে মুনীর চৌধুরী অনূদিত উইলিয়াম শেক্‌সপিয়ারের ‘মুখরা রমণী বশীকরণ’ নাটকে মূল চরিত্রে অভিনয় করে পরের দশকে ব্যাপক আলোড়ন তোলেন রেশমা। আরও অভিনয় করেন ‘শেষের কবিতা’, ‘বৃত্ত থেকে বৃত্তে’, ‘সাঁকো পেরিয়ে’, ‘দিন বদলের পালা’সহ অনেক আলোচিত নাটকে।

তিনি দীর্ঘদিন মঞ্চে শিল্পনির্দেশকের কাজ করেছেন। ষাটের দশকে যুক্ত ছিলেন মঞ্চ সংগঠন ড্রামা সার্কেলের সঙ্গে। স্বাধীন বাংলাদেশেও মঞ্চে নির্দেশনা দিয়েছেন।

আজমেরি জামান রেশমার জন্ম মুন্সিগঞ্জে। তার স্বামী জামান আলী খান ছিলেন পিটিভির প্রথম প্রযোজক। তার ছোট বোন নাজমা আনোয়ার ও ভাগনি ইশরাত নিশাতও ছিলেন অভিনেত্রী। তারা দুজনই প্রয়াত।

এই বিভাগের আরো খবর

স্টিলার ব্যান্ডের গায়ক লিটনের মৃত্যু

বিনোদন ডেস্ক: নব্বই দশকের জনপ্রিয়...

বিস্তারিত
৩ কোটি টাকা অনুদান পাচ্ছে চলচ্চিত্র কর্মীরা 

বিনোদন ডেস্ক: মহামারি করোনাভাইরাসে...

বিস্তারিত
অমিতাভ-জয়ার ৪৭তম বিয়ে বার্ষিকী আজ

বিনোদন ডেস্ক : বলিউডডের আদর্শ...

বিস্তারিত
শুরু হচ্ছে অ্যাভাটার ২ সিনেমার শুটিং

বিনোদন ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে সাড়া...

বিস্তারিত
রঙিন হচ্ছে সত্যজিতের ‘পথের পাঁচালী’

বিনোদন ডেস্ক: ১৯৫৫ সালে নির্মিত হয়...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *