চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনারের স্তুপ, বাড়তি চার্জে ক্ষতি

প্রকাশিত: ০৯:২৭, ৩০ মে ২০২০

আপডেট: ০৪:২৩, ৩০ মে ২০২০

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা: করোনা পরিস্থিতি ও ঈদের ছুটির কারণে আবারো কনটেইনার ও জাহাজ জট বেড়েছে চট্টগ্রাম বন্দরে। ফলে শিপিং লাইনগুলো বাড়তি চার্জ করায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন শিপিং এজেন্টরা। নৌ-পরিবহন অধিদপ্তর ডিটেনশন চার্জ মওকুফের কথা বললেও, বিদেশী শিপিং কোম্পানিগুলো তা মানছে না বলে জানিয়েছে শিপিং এজেন্টস এসোসিয়েশন। ফলে বিশাল অংকের ক্ষতির আশংকায় আছে আমদানিকারকরা।

চট্টগ্রাম বন্দরে আবারো বেড়েছে কনটেইনার ও জাহাজ জট। করোনা পরিস্থিতি এবং ঈদের ছুটির কারণে পণ্য খালাসে ধীরগতির কারণে বাড়তি চার্জ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন আমদানিকারকদের শিপিং এজেন্টরা। পণ্য খালাসে বিলম্বে ডিটেনশন চার্জ আরোপ না করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ২৯ এপ্রিল চিঠি দেয় নৌ-পরিবহন অধিদপ্তর।

সম্প্রতি সাধারণ ছুটিতে দেশব্যাপী কল-কারখানা বন্ধ থাকায় কনটেইনার সঠিক সময়ে খালাস নিতে পারেনি অনেক আমদানিকারক। পরে এসব পন্যের স্টোর রেন্ট মওকুফ করে বন্দর কর্তৃপক্ষ। তবে আমদানিকরকরা স্টোররেন্টের পাশাপাশি শিপিং লাইনের ডিটেনশন চার্জ মওকুফেরও দাবি জানায়।

নৌ-পরিবহন অধিদপ্তর চিঠি দিলে বিদেশি শিপিং কোম্পানিগুলো এখনো সিদ্ধান্ত দেয়নি বলে জানায় শিপিং এজেন্টস এসোসিয়েশন নেতারা।

এদিকে, বন্দরে জমছে কনটেইনারের স্তুপ। জটিলতা কাটিয়ে দ্রুত পণ্য খালাসের অনুরোধ জানিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

বন্দরে বাড়তি সময় জাহাজ থাকলে প্রতিদিন জাহাজ ভেদে খরচ হয় ১০ থেকে ১৫ হাজার ডলার, যা দিতে হয় সংশ্লিষ্ট আমদানিকারকদের।

 

এই বিভাগের আরো খবর

লাজফার্মায় অনুমোদনহীন ওষুধ

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর কাকরাইলে...

বিস্তারিত
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৯, শনাক্ত ৩০৯৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসে...

বিস্তারিত
বাড়ছে না ঈদুল আজহার ছুটি

নিজস্ব প্রতিবেদক: আসন্ন ঈদুল আযহায়...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *