সাহেদকে নিয়ে রিজেন্ট গ্রুপের অফিসে অভিযান

প্রকাশিত: ০৯:৪০, ১৫ জুলাই ২০২০

আপডেট: ০৫:৫৮, ১৫ জুলাই ২০২০

ফররুখ বাবু: ছদ্মবেশে দেশ ছেড়ে পালাতে চেয়েছিলেন বিতর্কিত ব্যবসায়ী রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ। কিন্তু সাতক্ষীরা সীমান্তে ধরা পড়েন র‌্যাবের হাতে। এপরপর হেলিকপ্টারে করে তাকে উড়িয়ে আনা হয় ঢাকায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে নিয়ে উত্তরায় রিজেন্ট গ্রুপের অফিসে অভিযান চালায় র‌্যাব।

রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদের বিরুদ্ধে করোনা টেস্টের প্রতারণার অভিযোগ ওঠার পর ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপনে ছিলো বলে জানান র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন। বিকেলে প্রধান কার্যালয়ে সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি। বাস, ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন ব্যবহার করে এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় তিনি পালিয়ে বেরিয়েছেন বলেও জানান র‌্যাব প্রধান। 

চুলে কালো রং ও গোফ ফেলে নিজের পরিচিত মুখটা ঢাকার চেষ্টা করেছিলেন। এরপরও নিশ্চিত হতে না পেরে বোরকা পড়েছিলেন প্রতারক সাহেদ। সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্তে ইছামতি নদীর একটি খাল পার হয়ে দেশ ছাড়ার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তার। বুধবার ভোররাতে ধরা পড়েন র‌্যাবের হাতে। 

সাহেদ গ্রেফতার

বিতর্কিত রিজেন্ট গ্র“পের চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ সাহেদকে গ্রেপ্তারের পর সাংবাদিকদের কাছে তাকে ধরার এই বর্ণনা দেন র‌্যাব কর্মকর্তারা। খালের পাড়ে ধরা পড়বার সময় উৎসাহী কারো মোবাইল ফোনে তোলা ভিডিওতে দেখা যায়- লোকজন তাকে গালমন্দ করেেছ। কেউ কেউ গায়েও হাত তুলছে। 

রিজেন্টের সাহেদ র‌্যাবের সদর দফতরে

তাকে আনতে ঢাকা থেকে উড়ে যায় র‌্যাবের হেলিকপ্টার। সাতক্ষীরা স্টেডিয়ামে হেলিকপ্টারে তোলার আগে সাহেদকে গণমাধ্যমের সামনে হাজির করা হয়। এ সময় র‌্যাব জানায়, বারবার অবস্থান পাল্টানোর কারণে সাহেদকে গ্রেফতার করতে বেগ পেতে হয়। দালালের মাধ্যমে ডিঙ্গি নৌকায় করে খাল পার হয়ে ভারতে পালানোর চেষ্টা করছিলেন। ঠিক সেই সময় র‌্যাবের বিশেষ টিম অভিযান চালিয়ে তাকে বিদেশি অস্ত্রসহ গ্রেফতার করে।

বারবার অবস্থান বদলেছেন সাহেদ

সেখান থেকে তাকে হেলিকপ্টারে উড়িয়ে আনা হয় ঢাকায়। তেজগাঁও হেলিপ্যাড থেকে সরাসরি নেয়া হয় উত্তরায় র‌্যাবের সদরদপ্তরে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাহেদকে নিয়ে উত্তরায় তার রিজেন্ট গ্রুপের অফিসে অভিযান চালায় র‌্যাব। 

করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদন নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ পাওয়ার পর গত ৬ জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয় র‌্যাবের ভ্যাম্যমাণ আদালত। তখন থেকেই আত্মগোপনে চলে যান সাহেদ। প্রতারণার মামলায় রিজেন্ট গ্রুপের এমডিসহ আরো ৯জনকে গ্রেফতার করা হয়। সাহেদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতারণা জালিয়াতি অর্থ আত্মসাতের ৫৯টি মামলা রয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

ঈদ যাত্রায় দুর্ঘটনা ২৩৮, নিহত ৩১৭   

নিজস্ব প্রতিবেদক: এবারের ঈদ যাত্রায়...

বিস্তারিত
ওসি প্রদীপ ও তার স্ত্রীর অবৈধ সম্পদের সন্ধান

নিজস্ব প্রতিবেদক:  ওসি প্রদীপ ও তার...

বিস্তারিত
দেশে খাদ্য ঘাটতির আশঙ্কা নেই: কৃষিমন্ত্রী 

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে বন্যায় কৃষির...

বিস্তারিত
সিফাতের জামিন আবেদনের শুনানি সোমবার

বরগুনা সংবাদদাতা: টেকনাফে পুলিশের...

বিস্তারিত
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৪, আক্রান্ত ২৪৮৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে গত ২৪ ঘণ্টায়...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *