করোনায় পাঁচ মাস বন্ধ সামাজিক অনুষ্ঠান

প্রকাশিত: ১০:১১, ১৩ আগস্ট ২০২০

আপডেট: ০২:২১, ১৩ আগস্ট ২০২০

ফাহিম মোনায়েম: করোনার কারণে প্রায় পাঁচ মাস ধরে বন্ধ সামাজিক সব অনুষ্ঠান। যার সরাসরি প্রভাব পড়েছে কমিউনিটি সেন্টার, কনভেনশন সেন্টার ও ডেকরেটরসহ সংশ্লিষ্টদের ওপর। আর্থিক ক্ষতি তো হচ্ছেই সেই সাথে কর্মহীন হয়ে পড়েছে অনেকে। এই খাত আবার কবে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে তা নিয়ে শংকায় সংশ্লিষ্টরা।

আলো ঝলমলে এমন আয়োজন এখন আর চোখে পড়েনা। হৈ হুল্লোর উচ্ছাস সব ঢেকে দিয়েছে করোনা মহামারি। কমিউনিটি সেন্টার বা কনভেনশন সেন্টারে বিয়ে, গায়ে হলুদ, জন্মদিন উদযাপন কিংবা করপোরেট সেমিনার-সম্মেলন- এমন সব আয়োজনই এখন বন্ধ।

ভাড়া হচ্ছে না যার ফলে কাজ নেই সেন্টার সংশ্লিষ্টদের। শুন্যমঞ্চ টেবিল চেয়ার। উৎসব আমেজের বদলে শুধুই নিরবতা। ভাড়া না হলে কিভাবে বেতন দেবেন কর্মীদের? অনেককেই পাঠানো হয়েছে বাধ্যতামূলক ছুটিতে।

গত প্রায় চার মাস নেই কোন বিয়ের অনুষ্ঠান। নেই সাংস্কৃতিক কোনো আয়োজনও। রাজনৈতিক দলের সভা-সমাবেশও থামিয়ে দিয়েছে এই করোনা। এ কারণে সবচেয়ে বেশি বিপদ ও ক্ষতির মুখে পড়েছে ডেকরশন ব্যবসার সাথে জড়িত মালিক-শ্রমিকরা।

কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠান নেই, তাই নেই খাবার আয়োজন, বন্ধ চুলা। ফলে বাবুর্চি আর তাদের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মীরাও বেকার।

দেশের ৫ হাজারেরও বেশি প্রতিষ্ঠানের চিত্র একই অবস্থা। এরইমধ্যে লোকসান গুনতে গুনতে বন্ধ হয়েছে প্রায় ৩শ’ প্রতিষ্ঠান। ডেকরেটরস ব্যবসায়ী সমিতির হিসাবে সারাদেশে ডেকরেটর ব্যবসায়ীদের ক্ষতি হয়েছে প্রায় তিন শ’ কোটি টাকা।

পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে তার নিশ্চয়তা নেই। তবে জীবিকার যুদ্ধটা যে দীর্ঘ, তা বুঝতে পেরেছে এই পেশার সংশ্লিষ্টরা।  

এই বিভাগের আরো খবর

আবার ওয়াসার এমডি হতে যাচ্ছেন তাকসিম!

নিজস্ব প্রতিবেদক: আবারও ঢাকা ওয়াসার...

বিস্তারিত
‘ভবন নির্মাণ আইন আছে, প্রয়োগ নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বৃহত্তর ঢাকার...

বিস্তারিত
কমতে শুরু করছে পেঁয়াজের দাম 

নিজস্ব প্রতিবেদক: পেঁয়াজের দাম কমতে...

বিস্তারিত
সীমান্তে আটকে থাকা ভারতীয় পেঁয়াজ ঢুকছে

অনলাইন ডেস্ক: অবশেষে স্থলবন্দগুলোতে...

বিস্তারিত
আজ চট্টগ্রামে আহমদ শফীর দাফন

নিজস্ব প্রতিবেদক: হেফাজতে ইসলামের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *