রাজনীতির মাঠে বাইডেনের লড়াই

প্রকাশিত: ০৯:৪৮, ০৮ নভেম্বর ২০২০

আপডেট: ১২:২৭, ০৮ নভেম্বর ২০২০

আফিয়া জ্যোতি : যুক্তরাষ্ট্রের জটিল নির্বাচনী প্রক্রিয়ার বৈতরণী পেরিয়ে দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ হলো জো বাইডেনের। ৩ দশকের বেশি সময় আগে প্রেসিডেন্ট হওয়ার যে স্বপ্ন নিয়ে পথচলা শুরু করেছিলেন বাইডেন, তা এখন বাস্তব। সেইসঙ্গে গড়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বয়সে প্রেসিডেন্ট আর সবচেয়ে বেশি ভোট পাওয়ার ইতিহাসও। 

পুরো নাম জোসেফ রবিনেট বাইডেন। জো বাইডেন নামেই সুপরিচিত ডেলাওয়্যার অঙ্গরাজ্যের এই সিনেটর। বাইডেনের জন্ম ১৯৪২ সালের ২০ নভেম্বর। পেনসিলভেনিয়ার স্ক্র্যানটনে বেড়ে ওঠা। বাবা জোসেফ বাইডেন সিনিয়র ছিলেন ফারনেস ক্লিনার। গাড়ির বিক্রয়কর্মী হিসাবেও কাজ করেছেন। চরম দারিদ্রে বড় হয়েছেন আমেরিকার রাজনীতির বর্ষীয়ান এই নেতা। 

ডেলাওয়্যার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানের পাঠ শেষ করেন জো বাইডেন। তিন সন্তানের জনক বাইডেন পেশায় একজন আইনজীবী। ১৯৬৬ সালে বিয়ে করেন নেইলিয়া হান্টারকে। প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর ১০ বছর পর বিয়ে করেন জিল জ্যাকবকে।

জো বাইডেনের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু ১৯৭০ সালে নিউ ক্যাসেল কাউন্টি কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার মধ্য দিয়ে। এরপর, ১৯৭২ সালে মাত্র ২৯ বছর বয়সে ডেলাওয়্যার অঙ্গরাজ্য থেকে সিনেটর নির্বাচিত হন। এরপর একাধিকবার সিনেটর হয়েছেন তিনি। ১৯৮৮ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিলেও শেষ পর্যন্ত নিজেকে প্রত্যাহার করেছিলেন জো বাইডেন। 

২০০৮ সালের নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক পার্টির পক্ষ থেকে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ওই বছর বারাক ওবামার সাথে ভাইস- প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন এবং ২০০৯ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত এই পদে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্টের মনোনয়নের টিকিট হাতছাড়া হয়। শেষমেষ সোনার হরিণটা হাতে ধরা দেয় ২০২০ সালে এসে।

শুরুটা তারজন্যে মোটেই সহজ ছিল না। এবারের আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের প্রার্থী হতে লম্বা প্রক্রিয়ার মধ্য থেকে আসতে হয়েছে। ফেব্রুয়ারিতে আইওয়া ককাসের ভোটের ফলাফলে প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী হবার সম্ভাবনা শেষ পর্যন্ত টিকবে কিনা তা নিয়ে দেখা দিয়েছিলো সংশয়। তবে শেষ পর্যন্ত প্রতিপক্ষ বার্নি স্যান্ডার্সকে হারিয়ে প্রেসিডেন্ট পদের টিকেট পান তিনি। 

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এবারের নির্বাচনে বাইডেনের এমন সাফল্যের পেছনে রয়েছে, দীর্ঘ আট বছর বারাক ওবামার ডেপুটি হিসেবে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন। এছাড়া, তাঁর ঘনিষ্ঠ ও ডেমোক্রেট সমর্থকদের দাবি, ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হিসেবে একের পর এক ভুল পদক্ষেপ এবং বাইডেনের নির্বাচনী ইশতেহার তাঁকে নির্বাচনী দৌঁড় জিততে সহায়তা করেছে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

বাইডেন ৩০৬, ট্রাম্প ২৩২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন...

বিস্তারিত
হার মানতে নারাজ ট্রাম্প, পরিবারে বিভেদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: প্রায় তিন দশক পর...

বিস্তারিত
বাইডেনকে সৌদি সরকারের অভিনন্দন

অনলাইন ডেস্ক: নির্বাচনে জয়ের পর...

বিস্তারিত
ক্ষমতা গ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রুদ্ধশ্বাস এক জয়ে...

বিস্তারিত
বাইডেনের জয়ে গলফ খেলেছেন ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের...

বিস্তারিত
বাইডেনকে বিশ্ব নেতাদের অভিনন্দন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বিশ্বের ক্ষমতাধর...

বিস্তারিত
আনন্দ-উচ্ছাসে ভাসছেন বাইডেন সমর্থকরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : হাড্ডাহাড্ডি...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *