চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ

প্রকাশিত: ০৮:০৩, ২৭ জানুয়ারি ২০২১

আপডেট: ০৮:৫৩, ২৭ জানুয়ারি ২০২১

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা: বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ, অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগের মধ্য দিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। এখন চলছে ভোট গণনার কাজ। এবারই প্রথম সরকারি ছুটি ছাড়া সম্পূর্ণ ইভিএম পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হলো চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন। আজ বুধবার (২৭ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে ভোট চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এই সময়ে কয়েকটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন নিহত বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। সংঘর্ষে কারণে ভোট গ্রহণ স্থগিতসহ কেন্দ্র দখল করে ইভিএম ভাংচুরের ঘটনাও ঘটেছে।

তবে ভোট সুষ্ঠু হওয়ার দাবি করে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী জয়ের শতভাগ আশাবাদ জানিয়েছেন। এদিকে বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ করেছেন, বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডাক্তার শাহদাত হোসেন।

নগরীর কয়েকটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।  পাহাড়তলীতে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে এক ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে আরেক ভাই নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত জন। নিহত নিজাম উদ্দীন মুন্না ১২ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবের আহমেদের সমর্থক।

অন্যদিকে, পাহাড়তলীর আমবাগানে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে আলাউদ্দিন নামে আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। এসময় আহত হন জন।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পাথরঘাটা এলাকার জেএম সেন স্কুল কলেজ ভোটকেন্দ্রের দখল নিয়ে বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী মো. ইসমাইল বালী আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী পুলক খাস্তগীরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয়। সময় ওই কেন্দ্রের একটি ইভিএম মেশিন ভাঙচুর করা হয়। সংঘর্ষের কারণে এখানকার দুটি কেন্দ্রে ঘন্টা ভোটগ্রহণ বন্ধ থাকে। উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগে বিএনপি দলীয় কাউন্সিলর প্রার্থী মোহাম্মদ ইসমাইল বালীকে আটক করে পুলিশ।

এছাড়া সংঘর্ষে লালখান বাজারে ১০ জন আহত হয়েছে। লালখান বাজার চানমারি রোডের শহীদ নগর সিটি করপোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল পৌনে ৯টা থেকে দুইপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এসময় হকিস্টিক, লাঠি নিয়ে হামলা চালানো হয়। কাচের বোতল, ইটপাটকেল ছোঁড়া হয় এলোপাতাড়ি। বিজিবি-পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ লাইন কেন্দ্রেও গোলোযোগের খবর পাওয়া গেছে। এখানে সংঘর্ষে আহত হয়েছেন কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত বেলালের সমর্থক শহীদুল ইসলাম শহীদ।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে মোট ৭জন প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন। ৪১টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীর সংখ্যা ১৭২ জন। ৭৩৫টি ভোট কেন্দ্রে ভোটারের সংখ্যা মোট ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৬জন।  ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে পর্যাপ্ত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

সিইসি ও মাহবুব তালুকদারের বাকযুদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভোটার দিবসের...

বিস্তারিত
ভোটার দিবসের উদ্বোধন

নিজস্ব সংবাদদাতা: দেশে তৃতীয়বারের...

বিস্তারিত
জাতীয় ভোটার দিবস আজ

অনলাইন ডেস্ক: আজ দোসরা মার্চ...

বিস্তারিত
২৯টি পৌরসভায় বিজয়ী হলেন যারা

ডেস্ক প্রতিবেদন: শেষ ধাপের ২৯টি...

বিস্তারিত
কারো নির্বাচন প্রত্যাখ্যান ব্যক্তিগত বিষয়: ইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক: পঞ্চম ধাপের পৌরসভা...

বিস্তারিত
ইউপি নির্বাচনে অংশ নিবে না বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক: আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ...

বিস্তারিত
বিচ্ছিন্ন ঘটনায় ২৯ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ শেষ

ডেস্ক প্রতিবেদন: দু’একটি বিচ্ছিন্ন...

বিস্তারিত
রাত পোহালেই ২৯ পৌরসভায় ভোট

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের ২০টি জেলার...

বিস্তারিত
মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে পৌর নির্বাচনের প্রচারণা

ডেস্ক প্রতিবেদন: আর একদিন পরই ২০টি...

বিস্তারিত
ঢাকা আইনজীবী সমিতির ভোটগ্রহণ চলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা আইনজীবী...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *