২১শে ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা দিবস পালনের নির্দেশ দেন বঙ্গবন্ধু

প্রকাশিত: ১০:৩৫, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১

আপডেট: ১১:১০, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১

রীতা নাহার: একাত্তরে অর্জিত স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন-সংগ্রামের গোড়াপত্তন হয়েছিল বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনে। স্বাধীনতা সংগ্রাম ও সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেই ভাষা আন্দোলনে ছিলেন একজন সক্রিয় অংশগ্রহণকারী তরুণ ছাত্র নেতা। এ বছর বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। তাই এবার ভাষার মাস ফেব্রুয়ারিতে ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধু মুজিবের ভূমিকা ও অংশগ্রহনের ঐতিহাসিক অধ্যায় নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজ উনিশতম পর্ব। 

১৯৫২ সালের জানুয়ারি মাসে চিকিৎসার জন্য ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় শেখ মুজিবুর রহমানকে। সন্ধ্যায় ছাত্রনেতা মোহাম্মদ তোয়াহা ও অলি আহাদ দেখা করতে আসলে তাদের মাধ্যমে অন্যান্য ছাত্রলীগ কর্মীদের সংবাদ পাঠান শেখ মুজিব। 

ঢাকা মেডিকেলে বঙ্গবন্ধুর পাহাড়ায় নিয়োজিত পুলিশের সদস্যরা ঘুমিয়ে পড়লে বারান্দায় বসে ছাত্রদের সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদ গঠন ও ২১শে ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা দিবস পালনের নির্দেশ দেন তিনি। নিজের মুক্তির দাবিতে ১৬ই ফেব্রুয়ারি থেকে অনশন ধর্মঘট করার কথাও জানান ছাত্রদের। 

প্রধানমন্ত্রী খাজা নাজিম উদ্দীনের উর্দুকে রাষ্ট্র ভাষা করার ঘোষণার প্রেক্ষিতে ২৯শে জানুয়ারি রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে প্রতিবাদ সভা ও ৩০শে জানুয়ারি ছাত্ররা ঢাকায় ধর্মঘট করে নতুন কর্মসূচি দেয়। ৩১শে জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বার লাইব্রেরি হলে মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর নেতৃত্বে হয় সর্বদলীয় কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রভাষা কর্মপরিষদ। সভায় আরবী লিপিতে বাংলা লেখার জন্য পাকিস্তানি সরকারের প্রস্তাবের তীব্র বিরোধীতা করা হয়। ২১শে ফেব্রুয়ারি হরতাল সমাবেশ ও মিছিলের কর্মসূচি দেয়া হয়।
 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *