দক্ষিণ আফ্রিকার ধরণটি বেশি ছড়িয়েছে: আইসিডিডিআরবি

প্রকাশিত: ০১:৪০, ০৮ এপ্রিল ২০২১

আপডেট: ১২:৪৬, ০৮ এপ্রিল ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক:  করোনা ভাইরাসের দক্ষিণ আফ্রিকার ধরণটি বর্তমানে বাংলাদেশে বেশি সংক্রমিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিষয়ক সংস্থা আইসিডিডিআরবি। বুধবার সংস্থাটি তাদের ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করে। সংস্থাটি জানায় দেশে করোনার যতগুলো ধরণ বর্তমানে সক্রিয়, তার মধ্যে এই দক্ষিণ আফ্রিকার ধরণটি সবচে বেশি সংক্রামক। আইসিডিডিআরবি বলছে, মার্চের চতুর্থ সপ্তাহে আক্রান্তদের ৮১ শতাংশের শরীরে দক্ষিণ আফ্রিকার ধরণটি পাওয়া গেছে। এর আগে, করোনার ব্যাপক সংক্রমণের জন্য ভাইরাসটির যুক্তরাজ্যের ধরণটিকে দায়ী করেছিলেন বিশেষজ্ঞদের অনেকেই।

দেশে নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের হার টানা কয়েকদিন ধরে ঊর্ধ্বমুখী। এর মধ্যে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্রের (আইসিডিডিআর’বি) এক গবেষণায় উঠে এসেছে, ঢাকায় সাম্প্রতিক সময়ে দক্ষিণ আফ্রিকার করোনা ভ্যারিয়েন্টের প্রভাব বেশি পাওয়া যাচ্ছে। গবেষণায় দেখা গেছে, বিশেষ করে মার্চের তৃতীয় সপ্তাহে ঢাকায় করোনাভাইরাসের সব ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় প্রাধান্য বিস্তার করছে দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টটি। আর মার্চের চতুর্থ সপ্তাহে প্রায় ৮১ শতাংশ ক্ষেত্রেই দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

গবেষণা ফলাফলে জানানো হয়, ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি প্রথম দেশে যুক্তরাজ্যের করোনা ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত করে প্রতিষ্ঠানটি। তবে জিআইএসএইড (গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা ডাটা) ডাটাবেজের তথ্য অনুযায়ী, দেশে ২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকেই এই ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়েছে।

গবেষণায় দেখা যায়, মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত যুক্তরাজ্যের এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি ক্রমান্বয়ে বেড়েছে, যার সর্বোচ্চ পজিটিভিটি হার পাওয়া গেছে ৫২ শতাংশ। করোনার বিভিন্ন ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি বিশ্লেষণে নাটকীয় পরিবর্তন দেখা যায় দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যরিয়েন্টের উপস্থিতিতে। মার্চের তৃতীয় সপ্তাহে এসে দক্ষিণ আফ্রিকার এই করোনা ভ্যারিয়েন্টটির প্রাদুর্ভাব অন্য সব ভ্যারিয়েন্টকে ছাপিয়ে যায়। মার্চের শেষ সপ্তাহের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, সবগুলো ভ্যারিয়েন্টের মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টই ছিল ৮১ শতাংশ।

আইসিডিডিয়ারবি’র বলছে তথ্য-উপাত্ত থেকে এটি স্পষ্ট যে করোনাভাইরাসের ভ্যারিয়েন্টগুলোর উপস্থিতি সার্বক্ষণিক মনিটরিং করতে হবে, যা এই ভাইরাস প্রতিরোধে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ও এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, সবাইকে বেশি বেশি ভাবতে হবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিয়ে। নতুন যে ভ্যারিয়েন্টই আসুক, তার বিরুদ্ধে বাঁচার উপায় একটাই মাস্ক পরে থাকতে হবে, হাত ধোয়ার অভ্যাস চালু রাখতে হবে, জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে।

PBC/PBC

এই বিভাগের আরো খবর

করোনা আক্রান্তের ২৮ দিন পর টিকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে করোনায়...

বিস্তারিত
মানিকগঞ্জে সমাহিত শামসুজ্জামান খান

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বাধীনতা ও একুশে...

বিস্তারিত
নতুন আশায় বেঁচে থাকার লড়াই : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের...

বিস্তারিত
‘আলো আসবেই’: সনজীদা খাতুন

নিজস্ব সংবাদদাতা: করোনা অতিমারির...

বিস্তারিত
প্রতীকী মঙ্গল শোভাযাত্রা 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলা নতুন বছরকে...

বিস্তারিত
সড়কে চেকপোস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক: কঠোর বিধিনিষেধ...

বিস্তারিত
কঠোর বিধিনিষেধে সারাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা সংক্রমণ রোধে...

বিস্তারিত
ডুডলে বাংলা নববর্ষ   

বৈশাখী ডেস্ক: করোনার কারণে যখন সব...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *