ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪, ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ  রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি ওয়ান প্লানেট সম্মেলন শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী জলবায়ু খাতে ৭ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের পরিকল্পনা সরকারের সৌদি আরবে জিয়া পরিবারের বিপুল অর্থ, তদন্ত করবে দুদক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দাবিতে সোচ্চার হোন থার্টিফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শিক্ষা অধিদপ্তর-বোর্ড ও বিজি প্রেস থেকে প্রশ্ন ফাঁস হয়: দুদক বিএনপি নির্বাচনে না আসলে গণতন্ত্র বাধাগ্রস্ত হবে না পল্লী বিদ্যুতে অতিরিক্ত ইলেকট্রিশিয়ান নিয়োগ দেওয়ায় মানববন্ধন রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা তুঙ্গে হাইকোর্টে লক্ষ্মীপুরের ইউএনওর ক্ষমা প্রার্থনা খাগড়াছড়িতে ৬ সশস্ত্র যুবক আটক চট্টগ্রামের সেবা সমূহ ডিজিটালাইজড হওয়ার তাগিদ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে সারা দেশে বিএনপির বিক্ষোভ আকায়েদের বিরুদ্ধে মার্কিন পুলিশের তিন অভিযোগ আশুগঞ্জে আমন চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু ভূমিমন্ত্রীর ছেলে তমালকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ গাইবান্ধায় যুবলীগ নেতার ও বরগুনায় জেলের মরদেহ উদ্ধার ঢামেক হাসপাতাল দিচ্ছে ডিজিটাল ডেথ সার্টিফিকেট

মেহেরপুরে সাড়া ফেলেছে পানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে রিমোট কন্ট্রোল ডিভাইস

প্রকাশিত: ০৪:১৩ , ০১ আগস্ট ২০১৭ আপডেট: ০৪:১৩ , ০১ আগস্ট ২০১৭

মেহেরপুর প্রতিনিধি: সেচের কাজে পানি ও বিদ্যুৎ অপচয় রোধে মেহেরপুরে সাড়া ফেলেছে রিমোট কন্ট্রোল ইলেকট্রিক ডিভাইস। চমকপ্রদক এ ডিভাইসটির উদ্ভাবক মনিরুল ইসলাম জানালেন একটি মোবাইল ফোন আর দুটি সিমকার্ড দিয়ে তৈরি ডিভাইসটি ব্যবহারে বিদ্যুৎ ও পানির অপচয় রোধের ফলে অর্থ সাশ্রয় হবে।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন বিএডিসি’র ক্ষুদ্র সেচ প্রকল্পের আওতায় মেহেরপুর জেলায় বসানো হয়েছে ৪৫টি গভীর নলকূপ। প্রতিটি নলকূপ থেকে সেচ সুবিধা দেয়া হয় প্রায় একহাজার হেক্টর জমিতে। এতে অপচয় হচ্ছে পানি ও বিদ্যুতের।

এ অভিজ্ঞতা মাথায় রেখেই পানি ও বিদ্যুতের অপচয় রোধে ইলেকট্রিক ডিভাইসটির উদ্ভাবনে কাজে হাত দেন মনিরুল।

মোবাইল ফোনে কল দিলেই চালু হবে গভীর নলকুপ। আবার কল দিলে বন্ধ হবে নলকুপটি। ডিভাইসটি তৈরি করতে খরচ হয়েছে মাত্র পাঁচ হাজার টাকা।

নিজের প্রয়োজনে উদ্বুদ্ধ হয়েই যন্ত্রটি তৈরি করেছিলেন বলে জানান মনিরুল। শুধু মনিরুল নয় ডিভাইসটি এখন সবার কাজে আসছে। পানি ও বিদ্যুৎ অপচয় রোধ হওয়ায় আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। পাশাপাশি যন্ত্রটি দ্বারা জমিতে প্রয়োজন মত যতটুকু পানি দরকার ঠিক ততটুকু পরিমাণেই পানি দিতে পারছেন তাঁরা।

এদিকে বিদ্যুৎ ও পানির অপচয় কম হওয়ায় তথা কৃষি উৎপাদন খরচ কম হবে বলে জেলার পাম্প মালিকদের ডিভাইসটি ব্যবহারে পরামর্শ দেয়ার কথা জানালেন জেলাটির বিএডিসি’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী শাহ্ জালাল আবেদীন।

সরকারি সহযোগিতা পেলে সারা দেশে ডিভাইসটি ছড়িয়ে দিতে চান এর উদ্ভাবক মনিরুল ইসলাম। 
 

এই বিভাগের আরো খবর

তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অন্যতম গন্তব্য হয়ে ওঠবে বাংলাদেশ

বৈচিত্র্যময় উদ্ভাবনের মধ্য দিয়ে, বিশ্বে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অন্যতম গন্তব্য হয়ে ওঠবে বাংলাদেশ, বললেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ...

ইন্টারেস্টিং অফার পেলে বাংলাদেশি ছবিতে কাজ করবো:নাফিস

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দুইবার অস্কারজয়ী বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক নাফিস বিন জাফর বলেছেন, ইন্টাররেস্টিং কোনো অফার পেলে তিনি...

প্রধানমন্ত্রীকে সোফিয়া: ‘আমি জানি আপনি বঙ্গবন্ধুর মেয়ে’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ সফররত যন্ত্রমানবী সোফিয়ার সঙ্গে কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is