'সংরক্ষিত বনভূমিতে প্রশিক্ষণ একাডেমি নয়'

প্রকাশিত: ০৮:৫৩, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৮:৫৩, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: কক্সবাজারে বরাদ্দ দেওয়া সাতশ' একর বনভূমিতে সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ একাডেমি স্থাপনের বিরোধিতা করেছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। সংসদীয় কমিটিকে বলেছে, সংরক্ষিত বনভূমির মধ্যে প্রস্তাবিত এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে পরিবেশ ও প্রতিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। আজ রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সভায় কমিটি এই প্রকল্প বাস্তবায়ন না করতে জোরালো সুপারিশ করে। 

সরক্ষিত এবং প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকা হিসাবে ঘোষিত এই বিপুল বনভূমি কিভাবে ওই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হলো তা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে খতিয়ে দেখতে বলছে সংসদীয় কমিটি।

সভা শেষে সংসদীয় কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, 'আমরা যেখানে বেদখল বনভূমি উদ্ধার করছি। সেখানে সরকারের আরেকটি সংস্থা সংরক্ষিত বনভূমি নিয়ে নেয়, এটা তো ঠিক না।'

সম্প্রতি সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য প্রশিক্ষণ একাডেমি নির্মাণ করতে কক্সবাজারে সংরক্ষিত বনভূমির ৭০০ একর জায়গা বরাদ্দ দেওয়ার খবর বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশ হয়। কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন ঝিলংজা বনভূমির ওই এলাকা প্রতিবেশগতভাবে সংকটাপন্ন।

২০১৮ সালে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন বঙ্গবন্ধু একাডেমি অব পাবলিক অ্যাডমিনিস্টেশন নির্মাণের জন্য পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অধীন পরিবেশ অধিদপ্তরের কাছে অনাপত্তিপত্র চায়। সংস্থাটি ওই বছরই বিভিন্ন শর্তে অনাপত্তিপত্র দেয়।

সাবের হোসেন বলেন, ওই এলাকাকে ১৯৩৫ সালে সংরক্ষিত বন হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এরপর ১৯৮০ সালে এটাকে জাতীয় উদ্যান ঘোষণা করা হয়। সর্বশেষ ১৯৯৯ সালে প্রতিবেশগত সঙ্কটাপন্ন এলাকা ঘোষণা হয়। ২০০১ সালে দেশের বনভূমির যে তালিকা করা হয়, তাতেও ঝিলংজা মৌজা বনভূমি হিসেবে আছে।

সংসদীয় কমিটিতে মন্ত্রণালয়ের দেওয়া এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ওই জমিতে জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবিলায় উপকূলীয় এলাকায় বনায়ন প্রকল্পের আওতায় সামাজিক বনায়নের মাধ্যমে ১০০ একর সৃজিত বাগান আছে। ২০-২০০ ফুট পর্যন্ত বিভিন্ন উচ্চতার পাহাড় আছে। প্রাকৃতিকভাবে জন্মানো, গর্জন, চাপালিশ, তেলসুরসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ আছে। ওই এলাকা হাতি, বানর, বন্য শুকর, বিভিন্ন প্রজাতির সাপ ও পাখির আবাসস্থল।

সংসদীয় কমিটিকে মন্ত্রণালয় বলেছে, ওই এলাকায় প্রস্তাবিত প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে পরিবেশ ও প্রতিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

MHS/MSI

এই বিভাগের আরো খবর

দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে; সংসদে প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ...

বিস্তারিত
সংসদে বিশেষ আলোচনার প্রস্তাব পাস

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বাধীনতার...

বিস্তারিত
খালেদাকে বিদেশে পাঠানোর সুযোগ নেই- আইনমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা: সাজাপ্রাপ্ত আসামি...

বিস্তারিত
মির্জাপুরের এমপি একাব্বর হোসেন আর নেই

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা: টাঙ্গাইল-৭ আসন...

বিস্তারিত
ডিজেলের দাম বৃদ্ধিসহ নানা ইস্যুতে উত্তপ্ত সংসদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: একাদশ জাতীয় সংসদের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *