বন্যায় রেললাইন ও সেতু ক্ষতিগ্রস্ত: চাপ কমেনি ঈদযাত্রায় ট্রেনের টিকেটের ওপর আপডেট: ০৮:৫৫, ২০ আগস্ট ২০১৭

ডেস্ক রিপোর্ট: বন্যায় বিভিন্ন স্থানে ট্রেনলাইন ও সেতু ক্ষতিগ্রস্ত হলেও এখনো ঈদযাত্রার জন্য ট্রেনের টিকেটের ওপরেই চাপ বেশি। ঈদের আগাম টিকেট নিতে রোববারও দীর্ঘ লাইন ছিল কমলাপুর রেলস্টেশনে। আজ বিক্রি হয়েছে ২৯ আগস্টের আগাম টিকেট। এদিকে  ক্ষতিগ্রস্ত লাইন ও সেতু মেরামত করে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে বলে জানালেন রেলওয়ের মহাপরিচালক। 

দিনাজপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা ও রাজবাড়ীতে বন্যায় ট্রেনলাইনের ওপর পানি উঠে বিভিন্ন এলাকায় চালাচল ব্যহত হচ্ছে। দিনাজপুরের কাউগা ও মন্মথপুরে রেললাইন তলিয়ে যাওয়ায় ওই এলাকায় ট্রেন চলছে না। টাঙ্গাইলের কালিহাতীর পৌলি রেলসেতুর মাটি ধসে যাওয়ায় ঢাকার সঙ্গে উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেন চলাচল বন্ধ। 

তারপরও এবার ঘরমুখো মানুষের ঈদযাত্রায় ট্রেন পথেই এখনো চাপ বেশি। ট্রেনের আগাম টিকিট পেতে তৃতীয় দিনেও কমলাপুরে দেখা গেছে যাত্রীদের ভিড়। 

কমলাপুর রেলস্টেশনে টিকেট বিক্রি কার্যক্রম দেখতে গিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন জানান, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রেললাইন স্বাভাবিক করতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন তারা।

তিনি জানান,বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রেললাইনগুলো দ্রুত ঢাকার সাথে সব জেলা গুলোর রেল যোগাযোগ নিশ্চিত করা প্রথম লক্ষ্য। এরপরে পর্যায়ক্রমে বাকিগুলোর কাজও সম্পন্ন করা হবে বলে। এতে কিছুদিন সময় লাগবে বলে জানান রেলের এ কর্মকর্তা।

নারী যাত্রীদের সুবিধার জন্য ভবিষ্যতে কাউন্টারের সংখা বাড়ানো হবে বলেও এসময় জানান তিনি। এদিকে রোববার থেকে লঞ্চের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। এছাড়াও চলছে বাসের আগাম টিকেট বিক্রিও।