বিচার বিভাগ ধৈর্য ধরছে, অসন্তোষ জানিয়ে বললেন প্রধান বিচারপতি আপডেট: ০৭:৩২, ২০ আগস্ট ২০১৭

আদালত প্রতিবেদক: সর্বোচ্চ আদালতে আজ রোববার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা নানা প্রসঙ্গে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করলেন।

নিম্ন আদালতের বিচারকদের শৃংখলাবিধির গেজেট নিয়ে আপিল বিভাগের বিচারপতিদের সঙ্গে বৈঠক করেনি সরকার। অন্যদিকে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে দেয়া আপিল বিভাগের রায় নিয়ে আদালতের বাইরে চলছে নানা বক্তৃতা ও কর্মসূচি।

এসব প্রসঙ্গে প্রধান বিচারপতি বলেছেন, তাঁরা ধৈর্য ধরছেন। পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় থাকার বৈধতা নিয়ে সেদেশের সুপ্রিম কোর্টের দেয়া রায়ের উদাহরণ টেনে প্রধান বিচারপতি বললেন, সেখানে কোনো সমালোচনা হয়নি। তিনি আরো পরিপক্কতা চান।

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে দেয়া সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে কিছুদিন ধরে সরকারি পর্যায়ে, রাজনৈতিক অঙ্গনে, এমনকি আদালত প্রাঙ্গণেও আইনজীবীদের মধ্যে নানান বক্তব্য প্রদান ও কর্মসূচি চলছে। এসব আলোচনায় প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার প্রসঙ্গ বার বার উঠে আসছিলো।

এমন প্রেক্ষাপটে আজ নিম্ন আদালতের বিচারকদের শৃংখলাবিধি সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ নিয়ে চলমান মামলার শুনানি হয়। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের উদ্দেশে অসন্তোষ প্রকাশ করে প্রধান বিচারপতি বলেন, বিচার বিভাগ ধৈর্য ধরছে।

অ্যাটর্নি জেনারেল আদালতকে জানান, বর্তমান পরিস্থিতে শৃংখলাবিধি সংক্রান্ত কাজের অগ্রগতি সম্ভব নয়, আরো সময় চান। আদালত ৮ অক্টোবর নির্ধারণ করে।

তবে রোববার শুনানির সময় প্রধান বিচারপতি সাম্প্রতিক সময়ের নানান বিতর্কের সুনির্দিষ্ট উল্লেখ না করে অ্যাটর্নি জেনারেলকে বলেন, "আপনারাই তো মিডিয়াতে আলোচনার ঝড় তোলেন।"

অ্যাটর্নি জেনারেল সাংবাদিকদের মামলার শুনানি সম্পর্কে অবহিত করলেও পাকিস্তানে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর নেওয়াজ শরিফের প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে বিদায় প্রসঙ্গে প্রধান বিচারপতির বক্তব্য নিয়ে কোনো কিছুই বলবেন না বলে জানিয়ে দেন।

গেজেট সংক্রান্ত মামলার প্রধান আইনজীবী ব্যারিস্টার এম. আমির উল ইসলাম সর্বোচ্চ আদালতকে জানান, সরকার না করলেও আপিল বিভাগ নিজেই এ গেজেট প্রকাশ করতে পারে।।