সেচে খরচ বাড়বে দেড় হাজার কোটি টাকা

প্রকাশিত: ০২:১৮, ১৭ নভেম্বর ২০২১

আপডেট: ০২:১৮, ১৭ নভেম্বর ২০২১

মেহের মণি: ডিজেলের দাম বৃদ্ধির ফলে জমিতে সেচ কাজে কৃষকদের বছরে দেড় হাজার কোটি টাকা বাড়তি খরচ হবে। এতে উৎপাদন খরচও বেড়ে যাবে। কৃষি গবেষকরা এই হিসাব দিয়ে বলছেন, যেহেতু সরকার সেচ কাজে ডিজেলে ভর্তুকি দেয় না, তাই পুরো টাকাই কৃষকদের পকেট থেকে চলে যাবে। 

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন-বিএডিসি’র তথ্য অনুযায়ী, সরকার সেচ কাজে ডিজেলে ভর্তুকি দেয় না। তবে বিদ্যুৎ চালিত সেচে ২০ শতাংশ কর অব্যাহতি দেয়। অথচ বিদ্যুৎ চালিত সেচের খরচ ডিজেলের তুলনায় এক তৃতীয়াংশ কম লাগে। দেশে সেচ পাম্প আছে ১৬ লাখ ৩৯ হাজার। এর মধ্যে ডিজেল চালিত ১২ লাখ ৬২ হাজার। আর বিদ্যুৎ চালিত ৩ লাখ ৭৩ হাজার। মোট সেচ পাম্পের চার ভাগের তিন ভাগই ডিজেল চালিত।

আমন ও আউশের মৌসুমে পর্যাপ্ত বৃষ্টি হয় বলে সেচের খুব একটা প্রয়োজন পড়ে না। তবে বোরো ধান চাষ সম্পূর্ণই সেচ নির্ভর। বাংলাদেশের মোট উৎপাদিত ধানের প্রায় ৬০ ভাগই বোরো। প্রতি লিটারে ডিজেলের দাম ১৫ টাকা বৃদ্ধির ফলে খরচ বাড়বে কৃষকের। 

একদিকে কৃষকের উৎপাদন খরচ বাড়বে অন্যদিকে ধানের ন্যায্য দাম পাওয়া নিয়েও অনিশ্চয়তায় থাকে তারা।

গবেষকরা বলছেন, বসতবাড়ি প্রায় শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আসলেও অধিকাংশ কৃষি জমি এখনও বিদ্যুৎ সুবিধার বাইরে। ফলে ডিজেল চালিত পাম্পের উপরই নির্ভর করতে হয়। 
 

MN/PBC

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *

loading...
loading...