'দলবাজি ও দুর্নীতি স্বাস্থ্যখাতের অর্জন ম্লান করেছে'

প্রকাশিত: ১২:৫২, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৩:৫০, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

লাবনী গুহ: বিরল আত্মত্যাগে একাত্তর সালে বিশ্ব মানচিত্রে নতুন রাষ্ট্র বাংলাদেশের অভ্যূদয় ঘটে। আধুনিক সমরাস্ত্রে সুসজ্জিত পাকিস্তানী বাহিনীর বর্বরতম নৃশংসতার কাছে মাথা নত করেনি বাংলাদেশের রিক্ত হস্ত স্বাধীনতাকামী নারী-পুরুষ। অগণিত সুন্দর স্বপ্নের মালাগাঁথা সোনার বাংলা গড়তে, নয় মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে বিজয় হয় একাত্তরের ১৬ই ডিসেম্বর। অকুতোভয় বাঙালির কাছে পরাজয় মেনে নেয় পাকিস্তানী শত্র“রা, বিজয় হয় বাংলাদেশের। এবারের বিজয়ের মাস স্বাধীনতা জয়ের পঞ্চাশ বছর। বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীর এই মাসে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রত্যাশা, প্রাপ্তি, অপূর্ণতা, অর্জন ও সম্ভাবনা নিয়ে ধারাবহিক ১৬ প্রতিবেদনের আজ নবম পর্ব।

৩০ লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে পাওয়া বাহাত্তরের মূল সংবিধানে স্বাস্থ্য সেবা দেশে মৌলিক অধিকার। পঞ্চাশের বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাত নিয়ে বিশ্লেষণ করেছেন এ খাতের বিশেষজ্ঞ বিশ্লেষক ভাইরোলজিস্ট নজরুল ইসলাম, মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এ বি এম আবদুল্লাহ ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ আব্দুস সবুর।

পঞ্চাশ বছরে জনসংখ্যার সাথে বেড়েছে রোগী, বেড়েছে স্বাস্থ্য সেবা ও চিকিৎসার চাহিদা। বিভিন্নভাবে বি¯তৃত হয়েছে এই খাত। পাশাপাশি বহু অনাকাংখিত অপূর্ণতাও দেখেন এই প্রবীন বিশ্লেষকরা।

বিশেষজ্ঞদের দৃষ্টিতে, রাজনৈতিক দলবাজি এবং দুর্নীতি এই সেবা খাতের বহু অর্জনকে ম্লান করেছে। 

বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তীতে দাঁড়িয়ে ভবিষ্যতে মানুষের দোড়গোড়ায় স্থায়ীভাবে সঠিক চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছানোর উৎসব চান এই বিশ্লেষকরা। 

পঞ্চাশের বাংলাদেশে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা খাতের বহু পরিসংখ্যান এখন ঈর্ষনীয়।  তার আড়ালে সর্বস্তরের নাগরিকদের যথাযথ চিকিৎসা ও সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করার ওপর বিশেষ জোড় দেন এই স্বাস্থ্যখাত বিশেষজ্ঞরা।
 

LGR/MSI

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *

loading...
loading...