ঈদ অবকাশে পর্যটক মুখরিত কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত আপডেট: ১০:০৬, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭

কক্সবাজার প্রতিনিধি: ঈদের ছুটি কাটাতে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত কক্সবাজারে ভিড় করছেন লাখো পর্যটক। ঈদের পরদিন থেকে সৈকতের সব পয়েন্টে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়।

সমুদ্রসৈকত ছাড়াও পর্যটন স্পট দরিয়ানগর, হিমছড়ি, ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক আর রামুর বৌদ্ধ মন্দিরও পর্যটকে মুখরিত। যান্ত্রিকতা থেকে দূরে সাগরের নীল জলরাশিতে অবিরত ঢেউয়ের মাঝে বাধভাঁঙা আনন্দে মেতেছেন ভ্রমণপিপাসুরা।

এই ভ্রমণপিপাসুদের নিরাপত্তার বিষয়ে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার ড. এ. কে. এম. ইকবাল হোসেন জানান, পর্যটকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে পুলিশের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

এদিকে, ঈদের এ সময়ে প্রায় পর্যটকশূন্য রাঙামাটি। অথচ এখানে রয়েছে পাহাড় ঘেরা এশিয়ার বৃহত্তম কৃত্রিম কাপ্তাই লেক, ঝুলন্ত সেতু, ডিসি বাংলো, মিনি চিড়িয়াখানা, রাজবন বিহার ও সুভলং ঝর্ণার মতো স্পট। কিন্তু পাহাড়ধসের পর এখানে আর আগের মতো আর পর্যটক আসছেন না । ফাঁকা পড়ে আছে রাঙ্গামাটির হোটেল-মোটেলগুলোট

এ বিষয়ে রাঙামাটির পর্যটন হলিডে'র ভারপ্রাপ্ত অফিসার সূর্য্ সেন ত্রিপুরা জানান, ৮৬টি গেস্ট রুমের মাত্র ছয়টিতে বুকিং হয়েছে। আর বাকিগুলো খালি পরে আছে।

সূর্য সেন বলেন, রাঙামাটির যোগাযোগ ব্যবস্থা মেরামত হওয়ায় আমরা আশা করেছিলাম ঈদের সময় পর্যটকদের আগমন বাড়বে। কিন্তু তেমনটি না হওয়ায় অনেকটাই হতাশ ব্যবসায়ীরা।