মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে চাপ প্রয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর আপডেট: ০৪:৩০, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: নিরাপত্তা নিশ্চিত করে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারকে বাধ্য করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে চাপ প্রয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কক্সবাজারের কুতুপালং আশ্রয় কেন্দ্রে মঙ্গলবার সকালে নির্যাতনের মুখে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা পরিদর্শনকালে একথা বলেন তিনি।

এসময় প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, মানবিক কারণে লাখ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করে মিয়ানমারকে তাদের ফিরিয়ে নিতে হবে।

আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে মঙ্গলবার সকালে কক্সবাজারের উখিয়ায় কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিমানে কক্সবাজার পৌঁছার পর সড়ক পথে কুতুপালং যান তিনি। এ সময় তার সাথে ছিলেন ছোট বোন শেখ রেহানা। শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন তিনি। রোহিঙ্গারা তাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যা নির্যাতন ও বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়াসহ দুঃখ দুর্দশার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীকে।

এর আগে কুতুপালং পৌঁছে রোহিঙ্গাদের মধ্যে সরকারের ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্যাতন করে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে। একটি জনগোষ্ঠীর ওপর এভাবে নির্যাতন করে মিয়ানমার সরকার মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “নাফ নদীতে ছোট শিশুর লাশ ভেসে বেড়াচ্ছে, নারীদের লাশ এটা তো সম্পূর্ণ মানবতা বিরোধী ব্যাপার।”

শেখ হাসিনা বলেন, মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে বাংলাদেশ। তবে মিয়ানমারকে তার প্রত্যেকটি নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে দেশে ফিরিয়ে নিতে হবে। এর জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মিয়ানমারের উপর চাপ প্রয়োগ করার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, “আন্তর্জাতিক পর্যায়েও প্রত্যেকটি সংস্থাকে আমি বলবো মিয়ানমার সরকারের উপর তারা যেন চাপ প্রয়োগ করে, যেন তারা তাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিয়ে যায়।”

প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমারের কঠোর সমালোচনা করে বলেন বাংলাদেশ শান্তি চায়। কিন্তু কোনো অন্যায় করা হলে তা সহ্য করা হবে না।

তিনি আরও বলেন, “আমরা শান্তি চাই, প্রতিবেশি দেশের সাথে আমরা একটা সুসম্পর্ক চাই কিন্তু কোনো অন্যায়কে আমরা বরদাস্ত করতে পারি না, মেনে নিতে পারি না।”

রোহিঙ্গাদের জন্য কুতুপালংয়ে দুই হাজার একর জমিতে ৩০০ আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ কাজও ঘুরে দেখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির সেনাবাহিনীর অভিযান ও নির্যাতন নিপীড়নের মুখে গত ২৫ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত পালিয়ে বাংলাদেশে এসেছে তিন লাখ ১৩ হাজার রোহিঙ্গা। তারা কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়ায় আশ্রয় নিয়েছে।