তাসমিয়া শান্তা'র শেষ কবিতা : আত্মহত্যার আগে

প্রকাশিত: ০৭:৫৯, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

আপডেট: ০৭:৫৯, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

[পাবনার মেয়ে তাসমিয়া শান্তা, যার কবিতা পড়লেই বোঝা যায় সে আপাদমস্তক একজন কবি, কেন জানি "মরিবার হলো তার সাধ" ! গত ২ মার্চ গভীর রাতে কোনো এক সময়ে আত্মহত্যা করে সে। সে-রাতেই লেখা এই কবিতাটা, যার নিচে সময়-তারিখ দেয়া আছে 'মার্চ ২ অ্যাট ১১:০৫পিএম'।]

অস্বীকৃতি ·

এই অন্ধকারে লুটিয়ে পড়া বিষণ্ন রাতগুলোয়
তুমি নেই। কিছু ঘন গভীর দীর্ঘশ্বাস আছে কেবল।
সেও আমার একার।

ঈশ্বর বলেছে, কেউ কারো দীর্ঘশ্বাসের
শব্দ শুনতে পায় না।
তবু আমি ভাবতাম, তুমি বোধয় শুনতে পাও।
এত কাছে থেকেছো, বুকের এত গভীরে
তবু আমার এত দীর্ঘ, স্পষ্ট দীর্ঘশ্বাস শুনতে পাওনি, তা আমার বিশ্বাস হতো না।

আচ্ছা, তুমি কি আমাকে চিনতে পেরেছো ?
ওই যে, তোমার পাশে হাঁটতে হাঁটতে
বড় অচেনা এক নদীর সামনে এসে
যখন তুমি থেমে গেলে,
যখন তোমার অবয়বেে স্পষ্ট হলো
ক্লান্তি আর হতাশার ছাপ!
বড্ড দরকারেও যখন সেই বড় দীর্ঘ নদী পার হবার আর কোনও উপায় ছিল না তোমার,
তখন যে অবাধ্য কিশোরী
সাঁকোর রূপ ধারণ করলো, শরীর এলিয়ে--
সেই আমি !
তুমি তো কেবল দরকারে আমাকে মারিয়ে গেছো, চিনবে কি করে ?
কতবার বললাম, দাঁড়াও একটু, একসাথে হাঁটি।
তুমি শুনলে না তো !

কী, এখনো চিনতে পারোনি তো ?
তবে থাক, আর চিনতে এসো না ।
আমাকে চিনতে পারোনি,
এ তোমার সাতজন্মের ভাগ্য গো!
আমাকে চিনলে, তুমি আর বাঁচতে পারবে না ।
মরে যাবে...
মরে যাবে আমার ঘন গভীর দীর্ঘশ্বাসে ।
আরো মরে যাবে, আমাকে ভালবাসতে না পারার আক্ষেপে !

আমি নারী। আমি প্রেমিকা।
আমি উত্তাল নদীর বুকে অবহেলায় পড়ে থাকা সাঁকো!
আমাকে চিনতে এসো না
আমাকে একবার চিনলে আর উপেক্ষা করতে পারবে না। 

March 2 at 11:05pm
.

এই বিভাগের আরো খবর

নজরুলের চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় কবি কাজী...

বিস্তারিত
জাতীয় কবির ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় কবি কাজী...

বিস্তারিত
কবি শামসুর রাহমানের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বরেণ্য কবি শামসুর...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *